কবিতায় সঞ্জিত মণ্ডল

রুখে দাঁড়া

ওরে মেয়ে রুখে দাঁড়া দুর্গামূর্তি ধর,
দশহাতে নয় দু-হাত দিয়েই অসুর নিধন কর।
তোর চোখের ওই অগ্নিবাণে ভস্ম কর তুই ধর্ষক জনে,
পরমা শক্তি অশেষ গুণে দুর্গামূর্তি ধর।
ও মেয়ে তুই রুখে দাঁড়া দুর্গামূর্তি ধর।
দেখবে যারা কুদৃষ্টিতে চোখদুটো তার গালতে হবে,
মা, বোন, কন্যা, প্রেমিকারও শক্তি ভয়ংকর,
সংহার কর শক্তি দিয়েই রুদ্রমূর্তি ধর,
ও মেয়ে তুই অমানিশায় কালীমূর্তি ধর।
ও মেয়ে তুই রুখে দাঁড়া দুর্গামূর্তি ধর।
পথে ঘাটে বনের ধারে পুকুরে নয় খালের পারে,
পচাগলা দেহ ফেলে ওই অসুরের দল।
পাটের ক্ষেতে আখের ক্ষেতে চুপিসাড়ে জাপটে ধরে,
এবার হাতে অস্ত্র ধরে চণ্ডীমূর্তি ধর।
ও মেয়ে তুই রুখে দাঁড়া দুর্গামূর্তি ধর।
চামুণ্ডার ওই ভীষণ তেজে অসুর মুণ্ড পড়বে খসে,
অগ্নিবাণে ঘুচাস মেয়ে সব অসুরের ছল।
জানিস নাকি অসুর যারা মায়ে খেদানো ছেলে তারা,
ছল করে তুই ঘোল খাওয়াবি অমৃত গরল।
ওরে মেয়ে এবারে তুই লক্ষ্মীমূর্তি ধর।
ও মেয়ে তুই রুখে দাঁড়া দুর্গামূর্তি ধর।
জানিস নাকি অসুর যারা কোনো শিক্ষা পায়নি তারা,
সব কাজে তাই অসভ্যেরা করে অত্যাচার।
মা বোনেদের দেখলে পরে ওদের জিভে লালা ঝরে,
ধর্ষণ খুন করলে এবার ওদেরই বধ কর।
ও মেয়ে তুই শিক্ষা দিতে বিদ্যামূর্তি ধর।
ও মেয়ে তুই রুখে দাঁড়া দুর্গামূর্তি ধর।
দিনের শেষে রোদের তাপে কর্মক্লান্ত কাজের চাপে,
সংসারে তুই দশভুজা সংহার মূর্তি ধর।
ও মেয়ে তুই রুখে দাঁড়া অসুর যারা ছাড়ুক পাড়া,
ওরে মেয়ে এবারে তুই অসুর দলন কর,
ও মেয়ে তুই রুখে দাঁড়া দুর্গামূর্তি ধর।
Spread the love

You may also like...

error: Content is protected !!