ধারাবাহিক ভ্রমণ সিরিজে শতদ্রু ঋক সেন – ৫৭

ফেরা

মানুষ ভাবে এক আর হয় এক। কেদারনাথ থেকে ফেরার এক মাস পরেই রেজাল্ট বের হয়, তারপর কেরিয়ার গড়ার টানে পাড়ি দি সূদুর বেঙ্গালুরুতে। বছর তিনেকের কোর্স সামলে ছুটিছাটায় বাড়ি বেড়াতে আসতাম, বড়ো কোনো ট্রীপ আর করা হয়নি। খালি সেকেন্ড ইয়ারে বাবা আমাকে ঘুরতে নিয়ে যায় মাইসোর আর উটিতে। সেখানে বসেও প্ল্যান হয়, আবার হিমালয় ঘুরতে যাবার।

২০০৬ জুন, ফাইনাল দিয়ে ফেরত আসি কোলকাতায়। বাবা একটা হ্যান্ডিক্যাম কিনেছে ততদিনে, ঠিক হয় ওটাকে সঙ্গে করে এবার আবার হিমালয় যাবো। কিন্তু ঐ যে বলেছি, মানুষ ভাবে এক, আর হয় এক। কোলকাতা ফেরার এক সপ্তাহের মধ্যে, বাবা আমাকে একা করে পাড়ি দেয় অন্যলোকে,দাদু, কাকা কাকিমার স্নেহ স্পর্শ থাকলেও, আমার সবচেয়ে কাছের বন্ধুকে হারিয়ে বিপর্যস্ত হয়ে পড়ি আমি।
সময় চলে নিজের গতিতে। দিন, মাস, বছর ঘুরে যায়। বাবার কোম্পানিতেই চাকরি পাই আমি, জীবন চলে নতুন খাতে। তবুও ভুলি না, একমাত্র পুত্রের কাছে, তার বাবার একমাত্র আবদার… ব্রক্ষ্মকপোলে এসে আমার পিন্ড দান করে যাবি তো বাবান???
বাবা চলে যাবার পর প্রায় চার বছর অতিক্রান্ত হয়ে যায়, ২০১০ সালের শুরু থেকেই মনে মনে শপথ নি, এ বছর যাবোই। সেই মতো আবার হিমালয় নিয়ে পড়াশোনা শুরু করি, যেতে আমাকে হবেই…

Spread the love

You may also like...

error: Content is protected !!