সাতে পাঁচে কবিতায় সুব্রত মিত্র

মেঘাচ্ছন্ন জংশন

দাদা আমার থাকে পাঁচ তলায়
আমি থাকি গাছ তলায়
সমাজ বোঝাই ব্যক্তিবর্গ গণ্যমান্য
এনারাই ভাই রচনা করছে সবাই সামাজিক অর্থ বৈষম্য
খানাকুল তহবিল অন্ন তালাশে উড়ে চলে গাঙচিল
ভাবনা মুখর ভুবন তটে
মানুষগুলো মরছে খেটে
কবিতা লেখেনি কেউ জন প্রগতির
জনজাতি•••••••জনজাতি•••••••••বলে চেল্লায় কোন ভণ্ড রাজের দল।
দেশ দরদ আর মশা মারার ইতিহাস
এই শহরে দেখা যায় বারোমাস
আলোচ্য বিষয়ের সুরে কোথাও দূরে••••
সমাজ ভাঙার শব্দ; মানবতা ছেঁড়ার গান করেছে কারা রপ্ত,
আত্মসন্তুষ্টির গোড়ায় রাষ্ট্র শোষণের গোপন ভাষণ
রঙে মাতে শহরের জনস্রোত
ক্রমে-ক্রমে নেতাগণের কল্পনায়
বাকরুদ্ধ হয়ে পড়ে নাগরিক আসরের মতামত
শৃঙ্খলহীন শিকলের মূল্য বিকল
এই সহজাতের সহবাস শহর দেখে বারোমাস
সকল শিকল গরিবের ঊর্ধ্ব রোধের কল
এমন নেতা হোক দেশের পিতা
অনাহারী আর সকল দুর্বল পাক ফিরে মনোবল,
তুমি জানো না কি?
এখনো তোমার জানার আছে বাকি?
তোমার সাথে আছে আমার অনেক ব্যবধান;
দ্বিচারিতার মেহনতিতে হয়েছে নির্মিত আমার জন্মস্থান;
আসলের মাথায় ঝোলে নকলের বোঝা
আমার মাথা বোঝাই চির অপমান
কাল আর বিরহের গান ভরা আমার প্রস্থান
তোমার সাথে আছে আমার অনেক ব্যবধান,
বিশুদ্ধ চরণে হেঁটে গিয়ে–
একটা দেওয়ালে হেলান দেওয়ার হয়নি খেয়াল
স্থির জল করে ছলছল
ঠিকানা খোঁজেনি তার কোন নাবিক
ঘুমের জরায়ুতে বেঁধেছি শিকড় তবু,
জিজীবিষা ডাকে নাই,ডাকে নাই কোন মায়ার কান্না
এই অবক্ষয় মূর্তি করিতে লালন
হয়নি উদ্ভব আজও কোন মহাজন।
Spread the love

You may also like...

error: Content is protected !!