মার্গে অনন্য সম্মান মিতা দাস বিশ্বাস (সেরা)

অনন্য সৃষ্টি সাহিত্য পরিবার

সাপ্তাহিক প্রতিযোগিতা পর্ব – ১১০
বিষয় – শিশুদিবস

শিশুদিবস সম্বন্ধে লিখতে গিয়ে প্রথমে লিখতে হয় শিশু দিবস প্রথমবার পালিত হয়১৯২০সালের ২৩ শে এপ্রিল ‌।বিশ্ব শিশু দিবস পালিত হয় ২০শে নভেম্বর আর আন্তর্জাতিক শিশু দিবস পালিত হয় ১লা জুন। তবে বিভিন্ন দেশে একটা নির্দিষ্ট দিনেই এই শিশু দিবস পালন করা হয়।
ভারতের প্রধান প্রথম প্রধানমন্ত্রী ছিলেন পন্ডিত জহরলাল নেহেরু। শিশুরা তাকে চাচা নেহেরু বলে ডাকতেন। জহরলাল নেহেরু শিশুদের সাথে সময় কাটাতে ভালবাসতেন। রাষ্ট্রসংঘ ১৯৫৪ সালের বিশ্বে নভেম্বর দিনটিকে শিশু দিবস হিসেবে গণ্য করেন ১৯৬৪ সালের ২৯ মে জহরলাল নেহেরু র প্রানের পর শিশুদের পতিতার চরিত্রের এই বিশেষ দিনটিকে মনে রেখে তার জন্মদিনটিতেই ভারতে শিশু দিবস হিসাবে পালন করা সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। তারপর থেকে ১৪ ই নভেম্বর শিশু দিবস হিসেবে পালন করে আসছে ভারত।
ভবিষ্যৎ গঠনের কথা চিন্তা করেই শিশুদের নিয়ে এই বিশেষ দিনটিকে শিশু দিবস হিসেবে পালন করা হয়। এই দিনটিতে শিশুদের অধিকার নিয়ে মানুষকে সচেতন করা হয়। শিশুরা যাতে সঠিক শিক্ষা পায়, সঠিক মনোন শক্তি পায়, দেশের সংস্কৃতি সম্বন্ধে জ্ঞান লাভ করে এসব দিকে লক্ষ্য রেখে এই দিনটিকে উদযাপন করা হয়। পাশাপাশি শিশুদের সঠিক পুষ্টির প্রয়োজনীয়তা সম্বন্ধেও জ্ঞান দান করা হয়। ঐদিন আমাদের দেশের বিদ্যালয় গুলিতে শিশুদের পড়াশোনা হয় না তার পরিবর্তে আনন্দদায়ক পাঠ খেলাধুলা নাচ-গান করানো হয় স্কুলে শিশুরা পাঠদান করে শিক্ষকের পরিবর্তে। পিকনিকের আয়োজন করানো হয় বাচ্চাদের মিষ্টি খাওয়ানো হয় নানা রকম উপহার দেওয়া হয়। সবমিলিয়ে ১৪ই নভেম্বর দিনটি পুরোপুরি শিশুদের দিন। তবে শিশু দিবস পালনের উদ্দেশ্য একটাই শিশুদের অধিকার ও তাদের ভবিষ্যৎ গঠনের বিষয় সম্পর্কে সবাইকে অবগত করা।

Spread the love

You may also like...

error: Content is protected !!