সাপ্তাহিক ধারাবাহিক ঐতিহ্যে “কলকাতার চার্চ (কোম্পানীর যুগ)” (চিত্রপর্ব – ১) – লিখেছেন অরুণিতা চন্দ্র

বর্তমানে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে একটি মহিলা মহাবিদ্যালয়ে ইতিহাসের সহকারী অধ্যাপিকা পদে নিযুক্ত আছেন। ইতিহাসের অধ্যাপনা ও গবেষণা ছাড়াও পুরাণ ও ভারতীয় সংস্কৃতিচর্চায় তিনি প্রবল আগ্রহী। বাঙালির জাতীয়তাবাদী ইতিহাস রচনা তাঁর স্বপ্ন। এছাড়া ভালোবাসেন ঐতিহাসিক স্থান ভ্রমণ করতে এবং লেখালিখির চেষ্টা করতে।
ইতিপূর্বে ইংরেজ ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির দ্বারা কলকাতায় প্রতিষ্ঠিত তিনটি চার্চের সংক্ষিপ্ত পরিচয় আলোচিত হয়েছে। কোম্পানী র অফিসিয়াল চার্চ বাদে অন্য চার্চ গুলি সম্পর্কে আলোচনার পূর্বে এই তিনটি গির্জার একটি সচিত্র উপস্থাপনা প্রয়োজন। নীচে সেই প্রচেষ্টাই করা হল।
১। ১৭৩০ খ্রিষ্টাব্দে চিত্রকর George Lambert-এর তুলিতে St. Anne’s Church। এর বিপরীতে অবস্থান করছে পুরাতন fort Willian যে স্থানে বর্তমানে জিপিও অবস্থিত।
২। চিত্রকর Thomas Daniel-এর তুলিতে ১৭৯৪ খ্রিষ্টাব্দে St. John’s Church

৩।বর্তমানের সেন্ট জন চার্চ

৪। অষ্টাদশ শতকের জার্মান চিত্রকর Johann Zofanny-The Last Supper

৫। সেন্ট জন চার্চে রক্ষিত পাইপ অর্গান

৬। Job Charnock- এর সমাধি, সেন্ট জন চার্চ

৭। St. Paul’s Cathedral, Old Photograph. সুউচ্চ পুরাতন চুড়াটি স্পষ্ট যা পরবর্তী কালের ভূমিকম্পে ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

৮। বর্তমানের সেন্ট পল ক্যাথেড্রাল

৯। ক্যাথিড্রালের অভ্যন্তর
১০। ক্যাথিড্রালের বিখ্যাত Tower Clock

চলবে

Spread the love

You may also like...

error: Content is protected !!