ভূত চতুর্দশীতে দুই ভূতের কথোপকথন! – লিখেছেন তারাপদ রায়

ভূত ও মানুষ

জনৈক ভূত দ্বিতীয় ভূতকে জিজ্ঞাসা করল,
‘আচ্ছা, তুমি মানুষ বিশ্বাস করো,
তুমি মানো যে মানুষ আছে?’
দ্বিতীয় ভূত একটু ভীরু প্রকৃতির,
প্রশ্নটা শোনামাত্র সে শিউরে উঠল,
এদিক-ওদিক দেখে তারপর বলল,
‘এই ভর সন্ধ্যাবেলা এসব কি কথা!’
প্রথম ভূত এবার বলল,
‘তাহলে তুমি মানুষ মানো, মানুষ ভয় করো,
বিশ্বাস করো মানুষ আছে ।’
দ্বিতীয় ভূত কবুল করল,
বিশ্বাস না করে উপায় কি ?
এই তো আজকেই দলে দলে মানুষ
মিছিল করে ময়দানে এলো, সভা করল,
দৈনিক লাখ লাখ মানুষ রাস্তাঘাটে, হাটেবাজারে,
ঘুরছে-ফিরছে, কাজ করছে, কাজ খুঁজছে,
হাসছে- কাঁদছে, ভালবাসছে, ঝগড়া করছে——-
দ্বিতীয় ভূতকে থামিয়ে দিয়ে,
তার মুখের কথা কেড়ে নিয়ে
প্রথম ভূত সরাসরি প্রশ্ন করল,
‘কিন্তু কিভাবে বুঝলে যে ওরা মানুষ ?
ওদের বুকের মধ্যে তলিয়ে দেখেছ,
ওদের ভিতরে মানুষের মন আছে কি না,
মানুষের আত্মা, মানুষের বিবেক আছে কিনা?’
দ্বিতীয় ভূত সতর্কভাবে বলল,
‘তত কাছে যাইনি,
অতটা সাহস হয়নি।’
প্রথম ভূত অবশেষে মোক্ষম কথা বলল,
‘তা হলে পুরোটা না জেনে,
এরপর আর কখনও বলতে যাবেনা,
মানুষ আছে, মানুষ দেখেছি।’
Spread the love

You may also like...

error: Content is protected !!