T3 কবিতায় পার্বণে তনিমা হাজরা (গুচ্ছ)

হিম আর রঙ ও বসন্ত অমনিবাস

(১)
খেজুর কাঁটার উপর ছেঁড়া বস্ত্রখণ্ড,
যেন পতপত করে ওড়ে বিমর্ষ পতাকা,
রসহীন বৃক্ষকাঠ।।
উদ্ভিদের জন্য মানুষ, নাকি মানুষের জন্য উদ্ভিদ,
কে কার ভরণপোষণ দায় নিয়ে নুব্জ্য হয়ে আদালতে হাজির??
(২)
দোলের আগে আগে ফুটছে পলাশ,শিমূল।
হোলি মানে রঙ,
এক সৌধ ভেঙে আর এক সৌধ গড়ে
ধর্ম, সেও তো রঙেরই এক তাঁবু।।
যে পারে
ছিদ্র খুঁজে খুঁজে ঝুরঝুরে চালাকি পেড়ে রক্তে ধুয়ে খায়।।
রক্তের স্বাদ একেক সময় একেক প্রকার, নোনতা, মিষ্টি, টক, ঝাল, কষাটে আদিম।।
(৩)
ধেড়ে অথবা নেংটি
কোনো ইঁদুরেরই নেই বিন্দুখানিক ভ্রুক্ষেপ অথবা আধার কার্ড।।
গাছেরা ভোটার আইডি বানাবে বলে
দলবেঁধে হাঁটতে হাঁটতে আসছে এগিয়ে মরুভূমির দিকে।
ওদের গায়ে থোকা থোকা পলাশ,শিমূল,
মানে রঙ, মানে তাঁবু, মানে রঙ বেরঙ আর তর্জনীর উপরে আঁকা গণতন্ত্রবাহকের সখেদ স্বরলিপি।।
(৪)
লাঙ্গলের ভার নিয়ে একাকী বলরাম
শীতল শয্যায় ধর্ণাসীন।
দ্বারকা মৌন, দুয়ারে নিখিল।।
(৫)
আমাদের প্রত্যেকের শিরায় শিরায়
চিরায়ত উচ্ছেদ,
মাটির হাতের নীচে হারানো শিকড়দলিল, টিপছাপ,
শবব্যবচ্ছেদ।
Spread the love

You may also like...

error: Content is protected !!