কবিতায় শম্পা সাহা

১। আমার ছুটি

দূরের ঐ নীলাকাশটা
ইচ্ছে করে ছুঁই,
সবুজ মাঠ বলছে ডেকে
আসিস না তো তুই?
গরাদ খানা শক্ত বড়
যাবার উপায় নেই
চোখ দিয়ে তাই নীলচে আকাশ
ইচ্ছে মতো ছুঁই
বাতাস বলে ফিসফিসিয়ে
আছিস কেমন, ভালো?
আমার মোটেই মন ভালো নেই
আর লাগে না ভালো।
সবুজ ঘাসের ছোট্ট ফড়িং
তারও আছে ছুটি
ঘাসের ডগায় গাছের মাথায়
বড্ড ছুটোছুটি
ভাল্লাগে না বন্দী জীবন
ভাল্লাগে না আর
একটু যাবো খেলার মাঠে
সাঁতরে নদী পার
চাই যে ছুটি মুক্তি আমার
ডাকছে দুহাত মেলে
উড়তে চাইছি ভীষণ আবার
ছোট্ট ডানা মেলে
দাও না ছুটি দাও বেড়োতে
থাকবো না আর ঘরে
একটানা কেউ ঘরের ভেতর
বন্দী থাকতে পারে?
খেয়াল খুশি ছুটবো আবার
করবো লুটোপুটি
চেঁচিয়ে বলবো মুক্ত আমি
আজকে আমার ছুটি।

২। স্বপ্ন সিঞ্চন

একপা যদি সামনে এগোই দুইপা হাঁটি পিছু
টান পেছনে টান সামনেও বুঝছি না যে কিছু।
বুঝতে চাই না কিছু।
লাভ কি বুঝে লাভ লোকসান দয়া এহসান
জীবন নিজের ছন্দে দেখি নিত্য বহমান
সে যে আপনি বলীয়ান।
হার-জিৎ বা খেরোর খাতা ফেলনা ছিঁড়ে
স্বপ্ন গুলো দেখ তোর আজ হাড় জিরজিরে
আশার ভিড়ে।
মেলনা ডানা নীল আকাশে খোঁজ জীবনের মানে
জীবন পাবি ফ্যালনা, ফেলা ঘরের কোণে
নিজের মনে।
স্বপ্ন ডানায় ফিনিক্স পাখি ডাকছে তোকে দেখ
নেই তো মরণ শুধুই জীবন রূপকথা সে এক
পক্ষীরাজের পাখ।
দে উড়ান, দে রে উড়ান তাকাস না আর পিছে
সূর্য টা হোক তোর নিশানা দেখিস না আর নীচে
স্বপ্নটা নে সিঁচে।
Spread the love

You may also like...

error: Content is protected !!