ফার্স্ট স্টপ

ফার্স্ট স্টপ: দেবি প্রপন্নার্ত্তিহরে প্রসীদ

ঋষিরুবাচ।। ১
দেব্যা হতে তত্র মহাসুরেন্দ্রে,
সেন্দ্রাঃ সুরা বহ্নিপুরোগমাস্তাম্‌।
কাত্যায়নীং তুষ্টুবুরিষ্টলম্ভাদ্‌
বিকাশিবক্ত্রাস্তু বিকাসিতাশাঃ।। ২
অর্থ: মেধা ঋষি বলিলেন-সেই যুদ্ধে দেবীকর্তৃক অসুরাধিপতি শুম্ভ নিহত হইলে অগ্নিপ্রমুখ ইন্দ্রাদি দেবগণ ও শুম্ভাদিবধরূপ অভীষ্ট সিদ্ধ হওয়ায় প্রফুলবদনে সকল দিক্‌ উদ্ভাসিত করিয়া সেই কাত্যায়নী দেবীকে স্তব করিতে লাগিলেন। ১-২
দেবি প্রপন্নার্ত্তিহরে প্রসীদ,
প্রসীদ মাতর্জ্জগতোহখিলস্য।
প্রসীদ বিশ্বেশ্বরী পাহি বিশ্বং,
ত্বমীশ্বরী দেবি চরাচরস্য।। ৩
অর্থ: হে ভক্ত-দুঃখ-হারিণি দেবি, আপনি প্রসন্না হউন। হে নিখিলবিশ্বজননি, আপনি প্রসন্না হউন। হে দেবি, আপনি প্রসন্না হউন। হে বিশ্বেশ্বরি, আপনি প্রসন্না হইয়া বিশ্ব পালন করুন। হে দেবি, আপনি চরাচর জগতের অধীশ্বরী। ৩
আধারভূতা জগতস্ত্বমেকা
মহীস্বরূপেণ যতঃ স্থিতাসি ।
অপাং স্বরূপস্থিতয়া ৎবয়ৈত-
দাপ্যায়তে কৃৎস্নমলঙ্ঘ্যবীর্যে ॥ ৪
অর্থ:
ত্বং বৈষ্ণবী-শক্তিরনন্তবীর্য্যা,
বিশ্বস্য বীজং পরমাসি মায়া।
সন্মোহিতং দেবি সমস্তমেতৎ,
ত্বং বৈ প্রসন্না ভুবি মুক্তিহেতুঃ।। ৫
হে দেবি, আপনি অনন্তবীর্যা বৈষ্ণবী শক্তি (বিষ্ণুর জগৎপালিনী শক্তি)। আপনি বিশ্বের আদিকারণ মহামায়া। আপনি সমগ্র জগ॥কে মোহগ্রস্ত করিয়াছেন। আবার আপনিই প্রসন্না হইলে ইহলোকে শরণাগত ভক্তকে মুক্তিপ্রদান করেন। ৫
বিদ্যাঃ সমস্তাস্তব দেবি ভেদাঃ
স্ত্রিয়ঃ সমস্তাঃ সকলা জগৎসু ।
ৎবয়ৈকয়া পূরিতমম্বয়ৈতৎ
কা তে স্তুতিঃ স্তব্যপরাপরোক্তিঃ || ৬
হে দেবি, বেদাদি অষ্টাদশ বিদ্যা আপনারই অংশ। চতুঃষষ্টি-কলাযুক্তা এবং পতিব্রত্য, সৌন্দর্য ও তারুণ্যাদি সকল নারীই আপনার বিগ্রহ। আপনি জননীরূপা এবং একাকিনীই এই জগতের অন্তরে ও বাহিরে পরিব্যাপ্ত হইয়া আছেন। স্তবনীয় বিষয়ে মুখ্য ও গৌণ উক্তির নাম স্তুতি। যখন আপনি সেইসকল উক্তিরূপা, তখন আপনার এইরূপ স্তুতি আর কি হইতে পারে? ৬
সর্ব্বভূতা যদা দেবী ভুক্তিমুক্তিপ্রদায়িনী
ত্বং স্তুতা স্তুতয়ে কা বা ভবন্তু পরমোক্তয়ঃ।। ৭
অর্থ: আপনি ভক্তি ও মুক্তি-দায়িনী এবং প্রকাশরূপিণী (সৃষ্টি, স্থিতি ও সংহাররূপ ক্রীড়াকারিণী)। এইরূপে যখন আপনার স্তব করা হয় তখন আপনার স্তবের উপযোগী শ্রেষ্ঠ বাক্য আর কি হইতে পারে? ৭
সর্ব্বস্য বুদ্ধিরূপেণ জনস্য হৃদি সংস্থিতে।
স্বর্গাপবর্গদে দেবি নারায়ণি নমোহস্তু তে।। ৮
অর্থ: হে দেবি, আপনি সকল ব্যক্তির হৃদয়ে বুদ্ধিরূপে অবস্থিতা এবং স্বর্গ মুক্তি-দায়িনী নারায়ণী। আপনাকে প্রণাম করি। ৮
কলাকাষ্ঠাদিরূপেণ পরিণামপ্রদায়িনি।
বিশ্বস্যোপরতৌ শক্তে নারায়ণি নমোহস্তু তে।। ৯
অর্থ: হে দেবি, আপনি কলা, কাষ্ঠা, ক্ষণমূহূর্তাদি সূক্ষ্ম কালরূপে জগতের পরিণামদায়িনী (অর্থাৎ অখণ্ডকালরূপিণী) এবং জগতের সংহার সমর্থা শক্তিরূপিণী। হে নারায়ণি, আপনাকে প্রণাম করি। ৯
সর্ব্বমঙ্গল-মঙ্গল্যে শিবে সর্ব্বার্থসাধিকে।
শরণ্যে ত্র্যম্বকে গৌরি নারায়ণি নমোহস্তু তে।। ১০
অর্থ: আপনি সর্বভীষ্টসাধিকা, একমাত্র শরণযোগ্যা, ত্রিভুবন-জননী ( বা ত্রিনয়না=সূর্যচন্দ্রাগ্নিলোচনা) ও গৌরবর্ণা। হে নারায়ণি, আপনাকে প্রণাম। ১০
সৃষ্টি-স্থিতি-বিনাশানাং শক্তিভূতে সনাতনি।
গুণাশ্রয়ে গুণময়ে নারায়ণি নমোহস্তু তে।। ১১
অর্থ: হে দেবি, আপনি সৃস্টি, স্থিতি ও সংহারের শক্তিরূপিণী (অর্থাৎ শৈবী, বৈষ্ণবী ও ব্রাহ্মী)। আপনি সনাতনী ও ত্রিগুণের আধারভূতা (নির্গুণা), অথচ ত্রিগুণময়ী। হে নারায়ণি, আপনাকে প্রণাম। ১১
শরণাগত-দীনার্ত্ত-পরিত্রাণ-পরায়ণে।
সর্ব্বস্যার্ত্তিহরে দেবী নারায়ণি নমোহস্তু তে।। ১২
অর্থ: হে দেবি, আপনি ত্রিশূল, অর্ধচন্দ্র ও সর্প ধারণ করেন এবং মহাবৃষ আপনার বাহন। আপনি মহেশ্বর-শক্তিরূপা। হে দেবি, আপনি শরণাগত, দীন ও আর্তগণের পরিত্রাণ-পরায়ণা (সর্বাপৎনাশিনী বা মুক্তি দায়িনী) এবং সকলের দুঃখ (জন্মমরণাদি)-নাশিনী। হে নারায়ণি, আপনাকে প্রণাম। ১২
হংসযুক্ত-বিমানস্থে ব্রহ্মাণী-রূপধারিণি।
কৌশাম্ভঃক্ষরিকে দেবি নারায়ণি নমোহস্তু তে।। ১৩
অর্থ: হে দেবি, আপনি ব্রাহ্মণীরূপে হংসযুক্ত বিমানে অবস্থিতা হইয়া কমণ্ডলু হইতে কুশ দ্বারা (প্রণবপূত) জল সিঞ্চন করেন। হে নারায়ণি, আপনাকে প্রণাম। ১৩
ত্রিশূল-চন্দ্রাহি-ধরে-মহাবৃষভ-বাহিনি।
মাহেশ্বরীস্বরূপেণ নারায়ণি নমোহস্তু তে।। ১৪
অর্থ: হে দেবি, আপনি ত্রিশূল, অর্ধচন্দ্র ও সর্প ধারণ করেন এবং মহাবৃষ আপনার বাহন। আপনি মহেশ্বর-শক্তিরূপা। হে নারায়ণি, আপনাকে প্রণাম। ১৪
ময়ূরকুক্কুটবৃতে মহাশক্তি-ধরেহনঘে।
কৌমারী-রূপসংস্থানে নারায়ণি নমোহস্তু তে।। ১৫
অর্থ: হে দেবি, আপনি ময়ূর-ও কুক্কুট-বেষ্টিতা মহাশক্তিধারিণী, অপাপবিদ্ধা (নিত্যশুদ্ধা) ও কুমার-শক্তিরূপিণী। হে নারায়ণি, আপনাকে প্রণাম। ১৫
শঙ্খচক্রগদাশার্ঙ্গগৃহীতপরমায়ুধে।
প্রসীদ বৈষ্ণবীরূপে নারায়ণি নমোঽস্তু তে ॥ ১৬
গৃহীতোগ্র-মহাচক্রে দংষ্ট্রোদ্ধৃত-বসুন্ধরে।
বরাহরূপিণি শিবে নারায়ণি নমোহস্তু তে।। ১৭
অর্থ: হে দেবি, আপনি ভীষণ-মহাচক্রধারিণী এবং বরাহরূপে জলমগ্না পৃথিবীকে উদ্ধারকারিণী। আপনি মঙ্গলময়ী। হে নারায়ণি, আপনাকে প্রণাম। ১৭
নৃসিংহ-রূপেণোগ্রেণ হন্তুং দৈত্যান্‌ কৃতোদ্যমে।
ত্রৈলোক্য-ত্রাণসহিতে নারায়ণি নমোহস্তু তে।। ১৮
অর্থ: হে দেবি, ভয়ঙ্কর নরসিংহমূর্তি ধারণ করিয়া আপনি দৈত্যবিনাশে উদ্যতা হইয়াছিলেন এবং আপনিই ত্রিভুবন রক্ষা করেন। হে নারায়ণি, আপনাকে প্রণাম। ১৮
কিরীটিনি মহাবজ্রে সহস্রনয়নোজ্জ্বলে।
বৃত্রপ্রাণহরে চৈন্দ্রি নারায়ণি নমোহস্তু তে।। ১৯
অর্থ: দেবি, আপনি মুকুটযুক্তা, মহাবজ্রধারিণী, সহস্র-নয়ন-শোভিতা, বৃত্রাসুর-নাশিনী এবং ইন্দ্র-শক্তিরূপা। হে নারায়ণি, আপনাকে প্রণাম। ১৯
শিবদূতীস্বরূপেণ হতদৈত্য-মহাবলে।
ঘোররূপে মহারাবে নারায়ণি নমোহস্তু তে।। ২০
অর্থ: দেবি, শিবদূতীরূপে আপনি বিশাল-অসুর-সৈন্য-নাশিনী। আপনি ভয়ঙ্করমূর্তিধারিণী ও মহাগর্জনকারিণী। হে নারায়ণি, আপনাকে প্রণাম। ২০
দংষ্ট্রা-করালবদনে শিরোমালা-বিভূষণে।
চামুণ্ডে মুণ্ডমথনে নারায়ণি নমোহস্তু তে।। ২১
অর্থ: চামুণ্ডে, আপনি বিকটদন্তবিশিষ্ট-ভীষণবদনা, নরমুণ্ডমালিনী ও মুণ্ডাসুরনাশিনী। হে নারায়ণি,
আপনাকে প্রণাম। ২১
লক্ষ্মি লজ্জে মহাবিদ্যে শ্রদ্ধে পুষ্টি স্বধে ধ্রুবে।
মহারাত্রি মহামায়ে নারায়ণি নমোহস্তু তে।। ২২
অর্থ: দেবি, আপনিই লক্ষ্মী, লজ্জা, ব্রহ্মবিদ্যা, শ্রদ্ধা, পুষ্টি ও মন্ত্ররূপিনী। আপনি নিত্যা (সনাতনী) মহাপ্রলয়রূপা রাত্রি ও মহামোহরূপা অবিদ্যা । হে নারায়ণি, আপনাকে প্রণাম। ২২
মেধে সরস্বতি বরে ভূতি বাভ্রবি তামসি।
নিয়তে ত্বং প্রসীদেশে নারায়ণি নমোহস্তু তে।। ২৩
অর্থ: দেবি, আপনি মেধারূপা, বাগ্দেবী, সর্বশ্রেষ্ঠা, সাত্ত্বিকী, রাজসী, তামসী, দৈবশক্তি এবং ঈশ্বরী। আপনি প্রসন্না হউন। হে নারায়ণি, আপনাকে প্রণাম। ২৩
সর্বস্বরূপে সর্বেশে সর্বশক্তিসমন্বিতে।
ভয়েভ্যস্ত্রাহি নো দেবি দুর্গে দেবি নমোহস্তু তে।। ২৪
অর্থ: দেবি, আপনি সর্ব-কার্য-ও কারণ-রূপিণী, সর্বেশ্বরী, সর্বশক্তিময়ী ও দুর্জ্ঞেয়া। দেবি, আপনি আমাদিগকে সকল আপদ হইতে রক্ষা করুন। হে নারায়ণি, আপনাকে প্রণাম। ২৪
এতত্তে বদনং সৌম্যং লোচনত্রয়-ভূষিতম্‌।
পাতু নঃ সর্ব্বভূতেভ্যঃ কাত্যায়নি নমোহস্তু তে।। ২৫
অর্থ: কাত্যায়নি, আপনার ত্রিনয়নশোভিতা সৌম্য বদন আমাদিগকে সকল ভৌতিক বিকার ও সর্বভূতের উপদ্রব হইতে রক্ষা করুক। হে নারায়ণি, আপনাকে প্রণাম। ২৫
জ্বালাকরালমত্যু-গ্রমশেষাসুরসূদনম্‌।
ত্রিশূলং পাতু নো ভীতের্ভদ্রকালি নমোহস্তু তে।। ২৬
অর্থ:হে ভদ্রকালি, প্রচণ্ডদীপ্তিমান্‌, অতিতীক্ষ্ণ, অসংখ্য অসুরনাশক আপনার ত্রিশূল আমাদিগকে সকল প্রকার ভয় হইতে রক্ষা করুক। আপনাকে প্রণাম। ২৬
হিনস্তি দৈত্যতেজাংসি স্বনেনাপূর্য যা যা জগৎ।
সা ঘন্টা পাতু নো দেবি পাপেভ্যোহনঃ সুতানিব।। ২৭
অর্থ: দেবি, আপনার যে ঘন্টাধ্বনি জগৎ পরিপূর্ণ করিয়া দৈত্যতেজ হরণ করে, তাহা-মাতা যেমন পুত্রকে অমঙ্গল হইতে রক্ষা করেন-সেইরূপ আমাদিগকে সকল পাপ হইতে রক্ষা করুক। ২৭
অসুরাসৃগ্‌ বসাপঙ্কচর্চ্চিতস্তে করোজ্জ্বলঃ।
শুভায় খড়্গো ভবতু চণ্ডিকে ত্বাং নতা বয়ম্‌।। ২৮
অর্থ: চণ্ডিকে, আপনার হস্তস্থিত তেজোময় এবং অসুরের রক্তসিক্ত ও মেদলিপ্ত খড়্‌গ আমাদের কল্যাণসাধন করুক। আপনাকে আমরা প্রণাম করি। ২৮
রোগানশেষানপহংসি তুষ্টা
রুষ্টা তু কামান্‌ সকলানভীষ্টান্‌।
ত্বামাশ্রিতানাং ন বিপন্নরাণাং,
ত্বামাশ্রিতা হ্যাশ্রয়তাং প্রয়ান্তি।। ২৯
অর্থ: দেবি, আপনি সন্তুষ্ট হইলে সকল প্রকার (দৈহিক ও মানসিক) রোগ বিনাশ করেন। আবার রুষ্টা (অসন্তুষ্টা) হইলে অভীষ্ট (কাম্য) বস্তুসমূহ নাশ করেন। আপনার আশ্রিত ব্যক্তিদিগের বিপদ স্থায়ী হয় না। যাঁহারা আপনার চরণাশ্রিত, তাঁহারা অন্যেরও আশ্রয়যোগ্য হন। ২৯
এতৎ কৃতং যৎ কদনং ত্বয়াদ্য,
ধর্ম্মদ্বিষাং দেবি মহাসুরাণাম্‌।
রূপৈরনেকৈর্বহুধাত্ম-মূর্ত্তিং,
কৃৎবাম্বিকে প্রকরোতি কান্যা।। ৩০
অর্থ: দেবি, সমপ্রতি আপনি ব্রাহ্মী প্রভৃতি ও কালী আদি মূর্তিতে বহু প্রকারে প্রকটিত করিয়া ধর্মদ্বেষী মহাসুরগণের এই যে বিনাশসাধন করিলেন, তাহা আপনি ভিন্ন অন্য কাহার দ্বারা সম্ভব হইতে পারে? ৩০
বিদ্যাসু শাস্ত্রেষু বিবেক-
ষ্বাদ্যেষু বাক্যেষু চ কা ত্বদন্যা।
মমত্বগর্ত্তেহতিমহান্ধকারে,
বিভ্রাময়ত্যেতদতীব বিশ্বম্‌।। ৩১
অর্থ: দেবি, সকল ঐহিক বিদ্যায়, মনুস্মৃত্যাদি প্রবৃত্তিপর ধর্মশাস্ত্রসমূহে এবং নিবৃত্তিপর বেদান্তবাক্যসকলে মানুষকে আপনি ভিন্ন আর কে প্রবর্তিত করে? দেবি, গভীর অজ্ঞানরূপ অন্ধকার ও মমতাপূর্ণ সংসারগর্তে মানুষকে আপনি ব্যতীত আর কে পুনঃ পুনঃ ভ্রমণ করাইতে পারে? ৩১
রক্ষাংসি যত্রোগ্রবিষাশ্চ নাগা,
যত্রারয়ো দস্যুবলানি যত্র।
দাবানলো যত্র তথাব্ধিমধ্যে,
তত্র স্থিতা ত্বং পরিপাসি বিশ্বম্‌।। ৩২
অর্থ: যেখানে রাক্ষস, যেখানে তীব্র বিষধর সর্প, যেখানে শত্রু ও দস্যুদল এবং যেখানে দাবানল সেখানে ও সমুদ্রবক্ষে-সর্বত্র আপনি সদা বিরাজিতা থাকিয়া বিশ্ব পরিপালন করেন। ৩২
বিশ্বেশ্বরী ত্বং পরিপাসি বিশ্বং,
বিশ্বাত্মিকা ধারয়সীতি বিশ্বম্‌।
বিশ্বেশবন্দ্যা ভবতী ভবন্তি,ড়
বিশ্বাশ্রয়া যে ত্বয়ি ভক্তিনম্রাঃ।। ৩৩
অর্থ: হে জগদীশ্বরি, আপনি বিশ্ব পরিপালন করেন। আপনি বিশ্বরূপা, আপনি বিশ্ব ধারণ করেন। আপনি ব্রহ্মাদিরও বন্দনীয়া। যাঁহারা ভক্তিপূর্বক আপনার শরণাগত হন, তাঁহারা বিশ্বের আশ্রয়স্থল হন। ৩৩
দেবি! প্রসীদ পরিপালয় নোহরিভীতেঃ,
র্নিত্যং যথাসুরবধাদধুনৈব সদ্যঃ।
পাপানি সর্ব্বজগতাঞ্চ শমং নয়াশু,
উৎপাতপাক-জনিতাংশ্চ মহোপসর্গান্‌।। ৩৪
অর্থ: দেবি, আমাদিগের প্রতি প্রসন্না হউন। সমপ্রতি স্মরণমাত্রই আপনি যেরূপ অসুরনাশ করিয়া আমাদিগকে রক্ষা করিলেন, সেইরূপ ভবিষ্যতেও আপনি সর্বদা আমাদিগকে শত্রুভয় হইতে রক্ষা করিবেন। দেবি, আপনি কৃপা করিয়া জগতের সমস্ত পাপ এবং অধর্মের পরিণামে উৎপন্ন দুর্ভিক্ষ ও মহামারী প্রভৃতি উপদ্রবসকল শীঘ্র নাশ করুন। ৩৪
প্রণতানাং প্রসীদ ত্বং দেবি! বিশ্বার্ত্তিহারিণি।
ত্রৈলোক্যবাসিনামীড্যে! লোকানাং বরদা ভব।। ৩৫
অর্থ: হে বিশ্বার্তিহারিণি দেবি, আপনি আমাদিগের প্রতি প্রসন্না হউন। ত্রিভুবনবাসিগণের আরাধ্য দেবি, আপনার চরণে প্রণত জনগণের প্রতি আপনি বরদা হউন। ৩৫
দেবী আগমন হেতু এই স্তব আমাদের শ্রদ্ধাঞ্জলি

শাল্যদানী

Spread the love

You may also like...

error: Content is protected !!