T3 ।। কবিতা পার্বণ ।। বিশেষ সংখ্যায় স্বপন নাগ

স্মৃতিভেজা অক্ষরে

কলেজ স্ট্রিটের ব্যস্ত ট্রাফিকে একঝলকের দেখা
তপ্ত দুপুরে মগ্ন একাকী হাঁটছিলে ভিড় রাস্তায়।
দূর থেকে দেখে মনে হয় যেন ছটপটে এক নদী
দু’কুল ছাপিয়ে ছুটে চলেছে নীল সাগরের টানে।
কখনো থমকে, কখনো-বা দ্রুত রোদক্লান্তিতে ভিজে ;
দুই বিনুনির হিসেব চুকিয়ে স্ট্রেট হেয়ারের ঝিলিক
হেঁটে যাও একা কফি হাউসের পাশ দিয়ে সম্ভ্রমে।
শাড়ি ও ফ্রকে তোমাকে মেলাই, মেলে না তবু কিছুতেই
সেই কতদিন আগেকার তুমি আর আজকের তুমি
মেলে না, শুধু হাঁটার ছন্দে পুরনো তুমিই অবিকল !
ছন্দিত পায়ে হাঁটছো আজো স্মৃতির নূপুরশব্দে-
কী যে খুঁজি আমি একা নির্বাক রচিত আড়াল থেকে
তবুও বেহায়া খুঁজে ফিরি সেই ভাঙাচোরা এক সাঁকো
দূরে পড়ে আছে সবুজ ঠিকানা জ্যোৎস্নামাখা রাতে
চালতা পাতায় শিশিরের জল টুপটাপ ঝরে পড়ে…
কতদিন ধরে ভেবেছি সত্যি দেখা হয় যদি ফের-
দেখা তো হলো! ডাকব কি তবে? নাহ্ থাক এইটুকু
অনুচ্চারেই লুকিয়ে থাকুক না-বলা-কথারা সব !
একখানি সাঁকো, এপার ওপার মাঝখানে নীরবতা
ম্লান জ্যোৎস্নাকে লিখে রাখি শুধু স্মৃতিভেজা অক্ষরে
Spread the love

You may also like...

error: Content is protected !!