মার্গে অনন্য সম্মান সুতপা ব‍্যানার্জী(রায়) (সর্বোত্তম)

অনন্য সৃষ্টি সাহিত্য পরিবার

সাপ্তাহিক প্রতিযোগিতা পর্ব – ৯২
বিষয় – মানবিক

নিবিড় বন্ধন

উন্নাসিকতায় ঢেক না তোমার চারপাশ,
বিভেদের শত ধারায় না হোক রক্তস্নাত,
উচ্চতার সে তো কোন পরিমাপ হয় না,
কতটা উঠবে আর সকলকে অসমান করে।

জাত,ধর্মের আচ্ছন্ন কায়া তোমায় ঘিরে,
উৎসাহিত আত্মিক ধর্ষনে বোধের অপচয়,
গণ্ডি ভাঙার নিবিড় আনন্দে ছোটো আলোয়,
কতটা বেড়া দিলে সকলের থেকে বিচ্ছিন্ন হওয়া।

বৈষম‍্য অর্থের যা কুলুঙ্গিতে তোমার ইহকালে,
হাতে হাত ধরতে দেয় নি,ভালোবাসতেও না,
সম্পদের পাহাড় সরিয়ে রশ্মিকে আসতে দাও,
কতটা অর্থ তুলাদণ্ডে তোমায় আরো ভারী করবে।

রূপের মোহে তোমার শাশ্বত চাওয়া নিবদ্ধ,
অরূপের খোঁজ তো আছে হৃদয়ের অতলে,
বর্ণ,গন্ধের প্রলেপ সরিয়ে খোঁজ একটা মানুষ,
কতটা আতর তোমায় আরো নির্মম সুগন্ধী করবে।

যশের চূড়ায় তৃপ্ত তোমার আত্মোপলব্ধি,
সামান্য কানাঘুষোয় হেলে পড়বে না তো?
চিরদিন ধরে রাখতে পারবে তা অমরত্বে,
সোপানটা বড় নড়বড়ে,এখনই বেঁধে বেঁধে থাক।

আত্মীয়,পরিজন,শুভার্থী কিছুর অভিলাষ,
বন্ধু? আজন্মের ছোট ছোট দুঃখ,সুখে,
ছেড়ে গেছে সব,একা বিষন্ন শোকাবাস,
তোমার প্রাচীর করেছে তোমায় নির্জন দ্বীপ।

জীবন সায়াহ্নে খোঁজ কাদের,অতীতচারণ,
অর্থ,মোহ,লোভ,অহংকার দূর করেছে,
আত্মগত উচ্চারণে সাফল‍্যের ঢক্কানিনাদ,
শোন আজ তোমার পরিচ্ছন্ন পরিখার ও পারে।

ও পারের ডাকে ঘৃত,অগ্নির সমাবেশে,
আমিত্বের বিসর্জন বাদ‍্য ঐ বাজে,
অশ্রু খোঁজ কাদের নয়নে অঝোরে,
তারা সব দূরাগত জীবনের প্রতি বাঁকে বাঁকে।

ধরেছিল যে হাত বাস্তব কষ্ট সয়ে,
সকলের গুরুত্বে হয়েছিল গুরুত্বহীন,
পার্থিব আশার ঊর্ধ্বে মানবিক জগত,
কালের সীমা পেরিয়ে ঐ মনের মণিকোঠায়।

সৃষ্টির রন্ধ্রে রন্ধ্রে ছিল মানুষের কথা,
আপোসহীন, অথচ নীরব উপস্থিতি,
কীর্তির আলোয় উজ্জ্বল সে সমাধি,
সম্পর্ক যাপন শতাব্দীর পর শতাব্দীতে।

Spread the love

You may also like...

error: Content is protected !!