প্রবন্ধে রতন বসাক

সৃষ্টির বার্তা আগে থেকেই অনুভব করা যায় 

এই জগতের সৃষ্টি আছে বলেই ধ্বংস হয়, ধ্বংস হয় বলেই নতুন করে আবার সৃষ্টি হয় । এক অলিখিত নিয়ম যুগ যুগ ধরে হয়ে চলেছে । কোন কিছু সৃষ্টি হওয়ার আগে থেকে তার একটা পূর্বাভাস আমরা আশেপাশে দেখতে পাই । প্রকৃতপক্ষে আমি কিংবা আপনি এই জগতে কিছুই সৃষ্টি করতে পারি না । তবে আমরা খুব সহজেই ধ্বংস করতে পারি সব কিছু ।
আমরা অনেকেই দাবী করি যে, আমি এটা সৃষ্টি করেছি । আসলে সেটা হলো আমরা রূপের পরিবর্তন করেছি মাত্র । আমাদের কারোরই সৃষ্টি করার ক্ষমতা নেই কিংবা ভগবান দেননি । সৃষ্টি একমাত্র পরম শক্তিমান ঈশ্বরই করতে পারেন । তার ইচ্ছাতেই এই ধরাতে সব কিছুর সৃষ্টি হয় । তাঁর সৃষ্টির আভাস অর্থাৎ বার্তা আমরা আগে থেকে পেতে শুরু করে দিই ।
যেমন পৃথিবীতে যখন আবহাওয়ার পরিবর্তন শুরু হয়, শীতের পর গরম, গরমের পরে বৃষ্টি । প্রত্যেকটা ঋতুর পরিবর্তনের আগেই তাঁর সৃষ্টির বার্তা আমরা পেয়ে থাকি । আবার যখন একজন সন্তান এই পৃথিবীর বুকে ভূমিষ্ঠ হয় । তার আসার ঠিক আগে থেকেই আমরা সে যে আসবে তার সৃষ্টির বার্তা তার মায়ের শরীরে দেখতে পাই । একটা বিশাল মহীরুহ সৃষ্টি হওয়ার বার্তা একটা ছোট্ট বীজের মধ্যে আমরা দেখতে পাই আগে থেকেই ।
ধ্বংস যেমন আমাদের কষ্ট ও বেদনা অনুভব করায় । ঠিক তেমন সৃষ্টি আমাদের মনে আনন্দের সঞ্চার করে । সৃষ্টি অর্থাৎ নতুন কিছু উদ্ভাবন । কিছু হারাতে যেমন আমাদের কষ্ট হয় । ঠিক তেমনি কিছু পেতেও আমাদের আনন্দ লাগে । আমাদের মনে যখন খুশির সৃষ্টি হয়, ঠিক তার আগেই আমরা একটা বার্তা পেয়ে যাই ; যে আমরা খুশি পেতে চলেছি । তাই কোন কিছু সৃষ্টির বার্তা আগে থেকেই বোঝা ও অনুভব করা যায় ।
ভালো কিছু সৃষ্টি হওয়ার বার্তা আমাদের সুখানুভূতির অনুভব আগের থেকে করায় । আবার খারাপ কিছু সৃষ্টি যেমন শারিরীক রোগ, ঝড়, অত্যাধিক বৃষ্টি, খরা বন্যা, ইত্যাদির সৃষ্টির বার্তা আমাদের দুখানুভূতির অনুভব করায় । তবে ভালো কিংবা মন্দ যাই হোক না কেন, তার সৃষ্টির বার্তা আমরা পাই আগে থেকে । এটা বাস্তব সত্যি যে একদিকে যেমন সৃষ্টি হতে থাকে, অপরদিকে আবার ধ্বংসও হতে থাকে । সবের বার্তা আমরা সকলেই পেয়ে থাকি । কেউ অনুসরণ করি আবার কেউ অনুসরণ করি না আমরা ।
Spread the love

You may also like...

error: Content is protected !!