গুচ্ছকবিতামূলে রতন বসাক

১। তুলে ধরো

অনেক কষ্টে মানুষ হয়ে
লিখেছিলে কথা,
গ্রামে গঞ্জে ঘুরতে থেকে
বুঝে সবার ব্যথা ।
ভয় না পেয়ে সাহস করে
এগিয়ে যাও তুমি,
প্রতিবাদটা করার জন্যই
শক্ত করো ভূমি ।
লেখনীতে তুলে ধরো
দুঃখ কষ্টের ছবি,
সবাই জানে বিশ্বের তুমি
বিদ্রোহী এক কবি,
তোমার লেখা কবিতা সব
ভালোবেসে পড়ি,
মনের থেকে আজও আমরা
শ্রদ্ধা সম্মান করি ।

২। সবার জন্য

নীল গগনের চাঁদটা দেখে
রোজার হবে শেষ,
মিলেমিশে থাকবে সবাই
সবার আগে দেশ ।
ঈদের কারণ খুশি মানায়
মুসলিম ধর্মের লোক,
সবার সঙ্গে মিলবে হেসে
ভিন্ন জাতের হোক ।
এমন দিনে মনের থেকে
সবার মিলন হয়,
ভালোবেসে কাছে যাবে
হিংসা দ্বন্দ্ব নয় ।
এই সমাজে ধনী গরীব
সবার জন্যই ঈদ,
মজা করো মনটা খুলে
কে’ন রাখো জিদ ?
বাইরে যাওয়া মানা আছে
বন্ধ রাখো ঘর,
নিয়ম ক’রে ধর্ম মানলেই
প্রভু দেবেন বর ।

৩। জানান

বানানগুলো লিখতে গেলেই
কুঁচকে থাকে ভুরু,
কোনটা সঠিক কোনটা বেঠিক
বলে দিন না গুরু ?
বিয়ে বাড়ির গল্প লিখতে
আসে নাতো মাথায় !
বর না বড় কোনটা লিখব
এখন আমি খাতায় ?
সত্যি বলি অনেক লিখেও
শিখি নিতো বানান,
ব এর পাশে কোনটা লিখি
সামনে এসে জানান ?
লিখেও আমি ভাবতে থাকি
বানান সঠিক হলো !
আমার লেখা বানানগুলো
পড়ে কেউ তো বলো ?
ন, ণ – স, শ, ষ – র, ড়, ঢ়
কোনটা কোথা লাগে ?
ভাল করে বানান শিখেই
লিখব আমি আগে ।

৪। কি যে করি

গিন্নি ডেকে বলে আমায়
চলো বাপের বাড়ি,
তাড়াতাড়ি বাইরে গিয়েই
নিয়ে এসো গাড়ি ।
আমি বললাম কেন ওগো
বাপের বড়ি যাবে ?
বাবা ফোনে বললো এখন
জামাই ষষ্ঠী খাবে ।
লক ডাউনে গাড়ি কোথায়
যেতে হবে হেঁটে,
অাসতে একটু দেরীই হবে
বলে দিও নেটে ।
হাঁটার ফলেই খিদে যাবে
অনেকটা যে বেড়ে,
সকাল সকাল ছাতা নিয়ে
চলো বাড়ি ছেড়ে ।
গিন্নি বললো একটু দাঁড়াও
বাউটিগুলো পড়ি,
টাকা পয়সা নেইতো হাতে
কি যে আমি করি ?

৫। পিঠে খাবই

যতো ঠান্ডা ততই ভালো
কেন বলছি আমি ?
খেতে পারবো ঘরে বসে
পিঠেগুলো নামি ।
শীতের সময় পৌষ পার্বনে
পিঠের উৎসব হবে,
পিঠে তৈরী করার জন্যই
ব্যস্ত সবাই রবে ।
চালের বাটা দিয়ে তৈরী
কত রকম পিঠে,
নলেন গুড়ের সঙ্গে মিলে
বড়ই খেতে মিঠে ।
ভাপা পিঠে, গোকুল পিঠে
আছে পুলি ভাজা,
গরমা গরম পিঠে খেলেই
মনটা হবে তাজা ।
দুধে ভেজা, পাটি সাপ্টা
আছে রসের বড়া,
সত্যি বলছি দেখেছি সব
খাটনি পড়ে করা ।
যতই খাটনি পরুক তবু
পিঠে আমি খাবই,
যতই ঠান্ডা চলুক বাইরে
উপকরণ আনবই ।
সকাল থেকে তৈরী করে
ঘরের মা বোন মিলে,
বসে থাকি কখন খাবো
সবটা পায়েস গিলে ।
আরো বেশি ভালো লাগে
বাসি পিঠে খেতে,
সকালবেলা বাইরে বসে
রোদে আসন পেতে ।

৬। মানতে হয়

খারাপ খবর পেলে পরেই
মনটা ভরে দুখে,
ভালো খবর আসলে পরে
হাসি ফোটে মুখে ।
ভালো মন্দ যেটাই আসুক
মানতে হবে তাকে,
জীবনচক্রে আগে থেকেই
সবই লেখা থাকে ।
আজকে হয়তো পাবো আমি
একটা খবর ভালো,
সেই কথাটা ভাবতে থেকেই
জ্বলছে মনে আলো ।
মনটা দেখে অনেক স্বপ্ন
ভালো খবর পেলে,
পড়ে থাকা জীবনটাতে
বাঁচার শক্তি মেলে ।
সকাল থেকেই বারে-বারে
দেখছি আমি ঘড়ি,
সময় যেন কাটছেনা আর
কি যে এখন করি ?
Spread the love

You may also like...

error: Content is protected !!