আঞ্চলিক কবিতায় প্রভা মজুমদার

চইল্লোম ছাপঠো দিতে

রাইতের আন্ধারঠো ফুঁইড়ে ফুঁইড়ে
উয়ারা আইসছেক মুর ঘরেক,
বুড়হা গুলানের পাও ছুঁইছেক
বাচ্চা গুলানরে আদর কাইরছেক
মুদেরকে মা বুইন বুইলছেক,
কত্তো হাইসে হাইসে রা কাইরছেক।
কিছু মাথায় ঢুইকলোক ??
তবে শুন, মুর বুইঝতে বাকি লাই রে
ছাপঠো লিতে হবেক লাই !
শুন ইবার উয়ার কুথা শুনবোক লাই,
ফি বচ্ছর টোপ দিনছে ঘর দিবেক,
টাকা দিবেক , কিন্তু ছাপঠো মিটল্যে পর
মুদের আর স্মরণ করে লা রে।
উয়াদের ছোট্ট পারা ঘর গুলান কত্তো বড় হইনছে
অর মুরা মাগলেই ভাগাইনছে।
উই সেবার ছাপঠো শেষ হইনলে ছিঁড়া
কাপড়ঠো পইরে লাজ শরমের মাথা খাঁইয়ে
লিতার কাছকে শ দিনের টাকাঠো মাগতেই
সে গলা খাকাইয়ে বইল্লেক আইজ মিলবেক
লাই দশদিন বাদে আসবিক, যত্তসব জংলী হাভাইতের দল।
সব লিতারাই খালি লিজেরঠো ভাবেক।
মুর হক্কের টাকাঠোও দিলেক লাই।
তবে শুন কেনে, মুরা হাতটোতে হাত মিলাই লে,
আগুতে ঘরঠো, রাস্তাঠো, আলোকঠো লিবোক,
পিছুতে ছাপটি দিবোক, ইয়াতে ভুল করবিক লাই।
বার বারঠো ঠকাইন যাবেক,
মুদেরকে ব্যবহারটো করবেক,
আর লয় মিলা হইনছে দাবিঠো না মাইনলেক
,ইবার ছাপ আছেক মুদের গাঁয়ের যটা
গাঁয়ের শিক্ষিত বিটি বইল্লেক সব পাবেক ‘নোটা।’
Spread the love

You may also like...

error: Content is protected !!