কবিতায় নির্মলেন্দু শাখারু

১। খুশি

তোমার খুশি ভালোবাসার
দেখালো পথ আলোর,
আমার খুশি রামধনু রঙ,
মেঘ-পালকের ঝালর।
তোমার খুশি গঙ্গাফড়িং
তিড়িং বিড়িং নাচে,
আমার খুশি হারানো ধন
ঝুলছে মোহর গাছে।
তোমার খুশি টুনটুনি-মন
দাপায় সারা বনে,
আমার খুশি এক মুঠো রোদ
ছড়ায় সবার মনে।
তোমার খুশি ছন্দ-ছড়ায়
হৃদয়কে দেয় দোলা,
আমার খুশি রূপকথাপুর
যায় না সে-দেশ ভোলা !
তোমার খুশি মিষ্টি সকাল
উঠল পাখি ডেকে,
আমার খুশি টাপুর টুপুর
জলছবি দেয় এঁকে।

২। তুমি যখন

তুমি যখন ব্যস্ত পড়ায়
আমি তখন আঁকি ,
টাপুর টুপুর আষাঢ়ে গান
ব্যাঙমা-মন পাখি ।
তুমি যখন খেলছ মাঠে
আমি তখন শান্ত ,
মনের খাতায় লিখছি ছড়া
কেই বা সেসব জানতো ।
তুমি যখন নৌকো বেয়ে
ইছামতীর বুকে ,
আমি তখন মায়ের কোলে
থাকি পরম সুখে ।
তুমি যখন সঙ্গী নিয়ে
দাপাও সারা বনে ,
আমি তখন সারেগামা
সাধি আপন মনে ।
তুমি যখন খেয়ালখুশি
ঘুরছো রঙিন বিশ্ব ,
আমি তখন জানলা দিয়ে
দেখছি সবুজ দৃশ্য ।
তুমি যখন ভাঙছ নদী –
বুকটা দুরুদুরু !
আমি তখন গড়ছি জীবন
শেষ থেকে হয় শুরু ।
Spread the love

You may also like...

error: Content is protected !!