লে ছক্কায় (নির্বাচিত কবিতা) মালিপাখি

১। জীবনকুচি

তুই শিলালিপি । দোপাটির চারা ।
তাই বুঝি পথে বাজে বাঁশিতারা ।
ফোটে গান,ছোটে, ঘামে ভেজা মোহ ।
তোকে খুঁজি কেন ? ভুলে গেছি ওহো ।
তোকে পেলে আমি, জানি সব পারি ।
তোর সাথে ভাব । তোর সাথে আড়ি ।
তুই শিলালিপি । মরীচিকা মাসি ।
তোর কথা ভেবে কাঁদি আর হাসি ।
পথ ভেঙে গেলে, ভাঙা পথ গড়ি ।
যত বাধা আসে ততো তোকে ধরি ।
আমি ডিঙি, তুই প্রজাপতি বাড়ি ।
তোর সাথে ভাব । তোর সাথে আড়ি ।
তুই শিলালিপি । চোখ ধরা পাখি ।
তোর দুটি চোখে – মায়াদ্বীপ রাখি ।
যত উড়ে যাস ততো আমি উড়ি ।
দিবানিশি তোকে নানা রঙে জুড়ি।
নাচে বাঁশিতারা, আলাদীন গাড়ি ।
তোর সাথে ভাব । তোর সাথে আড়ি ।
তুই শিলালিপি । মোনালিসা নদী ।
বলে দেনা এসে কিসে মেলে বোধি ।
পাতাঝরা বেলা, খরা, চোরাবালি ।
তোকে ভেবে ভেবে যাই পুড়ে খালি ।
তবু ডানা মেলি, তবু হাত নাড়ি ।
তোর সাথে ভাব । তোর সাথে আড়ি ।

২। তিন জোড়া বক

শুধু করে খাই খাই
এটা চাই সেটা চাই
নাম তার যেনো ভাই
সিরাজুল হক !
গান গায় রাতদিন
কাঠে মারে আলপিন
খায় নেচে ধিন ধিন
তেতুলের টক !!
গোফ জোড়া খুলে রাখে
সারা দেহে কাদা মাখে
যদি নাকি হাতে থাকে
এক জোড়া চক !
চক দুটি হাতে ধরে
একে ফেলে হুশ করে
নিল আকাশেতে ওড়ে
তিন জোড়া বক !!

৩। খুশির ছবি

চাঁদে হাটি মাটি ছুঁয়ে
মোনালিসা ছুঁয়ে ছুঁয়ে
ছাপানো রঙীন শাড়ি
দুলছে !
কাকে ডাকি,কাকে ডাকি ?
উড়ে উড়ে কত পাখি
আকাশে মেঘর বাড়ি
খুলছে !
ছোট ছোট বাড়ি গুলো
আহা যেন প্যাঁজা তুলো
বাতাসে রোদের গুঁড়ো
ভাসছে !
আলো, আলো, আলো মেখে
পটে যেন ছবি এঁকে
খুশিতে বরফ বুড়ো
হাসছে !

৪। বাউরী বাতাস

এইখানে এক ভোর এঁকেছি, সেইখানে এক সাঁকো ।
বললে আকাশ,ভুলেই গেছি, কোথায় যেন থাকো ?
আমি বললুম, তাও জানোনা, শুনবে আমার বাঁশি ?
ঢেউ ছড়িয়ে — সে বলবো না । ছুটতে ভালোবাসি — !
ছুটতে, ছুটতে, হারালে দিন, ছুটতে, ছুটতে নদী !
থমকে দাঁড়ায় । তিনটি হরিণ হাততালি দেয় যদি — !
হরিণ কোথায় ? হরিণ তো নয় ! হরিণডাঙার মাঠে !
বাউরী বাতাস বাজিয়ে সময়, একমনে ধান কাটে — !

৫। শ্রীমান টেঁপু

দোয়েল,ফিঙে
সবাই ভালো !
গরুর শিঙে
চাঁদের আলো !!
মাটির বাড়ি,
কাঠের ঘোড়া !
টিনের গাড়ি,
বেতের মোড়া !!
পোলাও, পুরি
পায়েস, রুটি !
বাদাম, মুড়ি,
গাজর, ফুটি !!
ডাকাত রে রে —
পাতার ভেঁপু !
বাজায় কেরে ?
শ্রীমান টেঁপু !!

৬। ইচ্ছে

পাখি কারা যেন বলে গেছে —
পাখি তারাপথ নেচে নেচে — ।
পাখি জল পড়ে, পাতা নড়ে —
পাখি অবিরত ছবি ঘরে — !
পাখি জলছবি আঁকা বাড়ি ।
পাখি ওড়ে চাঁদ,ধুয়ো, জারি ।
পাখি ঘুম ডুবে সারা পাড়া —
পাখি আমি আজ দিশে হারা !
পাখি দিশাহীন থাকি চেয়ে !
পাখি নাচে এক গান মেয়ে — ।
পাখি কত ঋন থাকে বাকি —
পাখি এক মনে ভাষা আঁকি — ।
পাখি জল পড়ে, পাতা নড়ে —
পাখি অবিরত ছবি ঘরে — ।
পাখি ছবি গুলো ধরে রাখি ।
পাখি আমি নাকি, আমি নাকি ,–
পাখি বলে দেনা কিযে আমি ।
পাখি মেঘ হলে ফুলে নামি — ।
Spread the love

You may also like...

error: Content is protected !!