সাপ্তাহিক রম্য সাহিত্যে মন্দিরা হাজরা (বসু) (পর্ব – ৬)

আগেই বলেছি যে কয়েকমাস ঘনঘন প্রাদূর্ভাবের ফলে এই ওয়ার্ডের  স্টাফকূলের আবালবৃদ্ধবনিতা আমার ঠিকুজি কুলুজি কন্ঠস্থ করে ফেলেছিলেন । প্রতিবারেই এনারা আমাকে ” দেঁতো হেসে” আহ্বান , “তিতো গিলে” সুশ্রূষা এবং ” হাঁফ ছেড়ে” বিদায় দিয়ে থাকতেন । এন. এইচ. এস.’ এর মেয়াদী শ্রমিক হবার কারনে একথা আমার বিলক্ষণ জানা আছে যে বিগড়ে যাওয়া ক্রনিক  পেশেন্টরা স্টাফমহলে  নিজগুনে নানান বিশেষণ প্রাপ্ত হয়ে থাকেন । একথা আর বলে দিতে হয় না যে , এইমাত্র যে সরলা নার্সটি  আমাকে ” হ্যালো সূইটি ” ( অনুবাদে – ভ্যালা জ্বালা !) বলে ভর্তি  করলেন , সাক্ষাত্ তিনিই মিনিট দুয়েক পরে স্টাফরুমে গিয়ে বলবেন ” ওহ্ ডিয়ার ,দ্যাট “ইয়ার” লেডি ইজ্ ব্যাক এগে..এ..এ…এ….এ…ন!
”বড়ো দুঃখেই এই “আবোল তাবোল” বলছি রে ভাই যে – “কানের  আমি, কানের তুমি, “কান” দিয়ে যায় চেনা!”

Spread the love

You may also like...

error: Content is protected !!