কবিতায় মানস ঘোষ

কর্মক্ষেত্রের দাবী এবং প্রচারের জড়তা কাটিয়ে প্রথম আত্মপ্রকাশ ২০১৪ সালে। কবি মানস ঘোষের এযাবৎ প্রকাশিত কাব্যগ্রন্থ দুটি, 'আরশিনগরের ছায়াসঙ্গীরা' ও 'অম্বুরি তামাকের গন্ধ' বিদগ্ধমহলে সমাদৃত। এছাড়া একাধিক পত্রিকার সম্পাদনার সঙ্গেও তিনি যুক্ত। সমকালের সামাজিক, রাজনৈতিক ঘটনার অভিঘাত তাঁকে বিচলিত করে, কবিতায় উঠে আসে তার বেদনা, প্রতিবাদ। বিঘ্নিত হয় কবির নিভৃতযাপন। তারই মাঝে রঙ ছড়ায় হৃদয়ের গভীরে ডুব দিয়ে তুলে আনা মণিমুক্তো।

মেলাবো না হাত

একের পর এক করমর্দনে
বাড়তে থাকে সংক্ৰমণ, কোথাও রানী
অথবা কোনো দেশের রাজকন্যা..
আমরা সে ঝুঁকি নিইনি,
খেলিনি দোল, দরবারে কাটেনি আঁচড়..
যদিও কিছু উড়ান…. তা হোক,
ওরা তো আমাদেরই লোক !
এখন লকডাউন..
কথা শোনো, ঘরে থাকো
নিজেরাই বুঝে নাও,
নিজেদের ভালো
মুশকিল? – জানি,
এত যে মানুষ ! এত বড় দেশে !.. কেউ থাকে ঘরে
কেউ পথে যায় ভেসে…
এরপর…কেউ খাবার জোগাড় করতে গিয়ে..
কিছু ঘরে ফেরার হাঁটায়..
কেউ বা অনাহারে
বাকিরা সংক্রমণে..
এইভাবে সংখ্যায় কমতে থাকি ,
ক্রমাগত সহজলভ্য হয়
নির্জনতার সুযোগ , দূরত্বের পরিসর !
একসময়
উঁচু বাড়িগুলো টিকে থাকে কেবল,
তারও পরে, পড়ে থাকে শুধু রাজদরবার !
আর ভয় নেই…
আমরা পোকামাকড়ের মতো মরে যাবো, হে রাজন,
তবু মেলাবো না হাত ..
ছুঁয়েও দেখবো না ঐ ক্রূর পাশার দান !
Spread the love

You may also like...

error: Content is protected !!