নাট্য-নাটিকায় দেবাশীষ মণ্ডল – অন্তিম

কৌতুক নাটক-কৈলাসে পদ বদল

৭ম দৃশ্য
কৈলাসের সদর দপ্তর

(শিব কম্পিউটার নিয়ে বসে আছেন এমন সময় লক্ষীর প্রবেশ)

লক্ষী।বাবা!বাবা!এই যে তুমি এখানে বলছি তখন দায়িত্ব আমাকে দিয়েছ সামরিক দপ্তর তখন আমাকে না জানিয়ে আস্থ একটা জল জ্যান্ত মানুষকে কৈলাসে প্রবেশ করানো কি ঠিক হলো?

শিব।কেনরে কি হল আবার!

লক্ষী। তুমি কিছু জানো না! তুমি যদি কিছু না জানো তবে এই কৈলাস দরবারের সভাগৃহে বসে আছো কেন?

শিব।কেনরে এটা তো আমার দপ্তর তাই এখানে বসেই হিসাব মিলাচ্ছি।

লক্ষী।মিলছে হিসাব মিলছে!মিলবে না বাবা মিলবে না। হিসাব মিলাবে কি করে!চিত্রগুপ্ত এত দিন এই পদ সামলে রাখতেন বলে অভ্যাসে মেলাতেন।তুমি তো!

(নারদ মর্তের নারায়ণ কে নিয়ে এসে বলে)

নারদ। মোবাইল! মোবাইল।প্রভু দেবাদিদেব মহাদেব।এই যে এই মর্ত মানব হলেন সেই আন্দোলন কারী যে চাকরির জন্য আন্দোলন করতে করতে এই কৈলাস নামে চলে এসেছেন।

শিব।এ্যা !এই আন্দোলন এই মর্তে কেন শ্রেষ্ঠ জীব মানব।

নারায়ণ।আঞ্জে আমি মানব আর আছি নাকি! আপনার সৃষ্টি ঐ মর্ত লোকে মানব সেই যার টাকা আছে। আমি তো হলাম ঐ নামের মানব।চাকরি নাই, পরীক্ষায় পাশ করেও চাকরি পাইনি তাই এই আন্দোলন।

লক্ষী। আন্দোলন মানে তো জুট ঝামেলা।বলছি ঐ ঝামেলা ছাড়ুন ।আর সিধে বাড়ি চলে যান।অনর্থ কোন কাজ করে জীবন অতিবাহিত করুন।আহার নিশ্চয় পাবেন ঐ যে দুয়ারে খাবার নাকি প্রকল্প চলছে না মর্তে। খাবার অভাব তো আর নেই!

নারায়ণ।আপনি কে মাননীয়া?
নারদ। মোবাইল!না মানে ইনি হলেন মা লক্ষ্মী। খাবার! না না এখন সামরিক মন্ত্রী।

নারায়ণ।তাই এই দুর্গতি আমাদের।এ রে আপনারা দেবতারা যত পদ বদল করে বসে আছেন তারপর মর্তে মত অভাব অনটন মারামারি লেগে আছে।

শিব।হুঁ ভাববার বিষয়।তবে তোমার নাম কি মানব?
নারদ। মোবাইল!না মানে নারায়ণ! নারায়ণ!(জিব বের করে)না মানে নাম হল—

নারায়ণ। নারায়ণ। আমার নাম নারায়ণ গঙ্গোপাধ্যায়।আর নারদ বাবু আপনি নারায়ণ সেবা ছেড়ে সর্বদা মোবাইল সেবা করে চলেছেন।ও সব বাদ দিয়ে প্রান ভরে বলুন নারায়ণ! নারায়ণ।(প্রনাম করে)

(দূর্গা, অসূর, সরস্বতী, কার্তিক ,গনেশ আসে)

দূর্গা। ঠিক বলেছ বাবা ঠিক বলেছ।তার যেটা কাজ সেটাই করা ভালো। তুমি তো জ্ঞানের ভান্ডার দেখছি।তবু তুমি চাকরি কেন পায়নি?
সরস্বতী।কি করে পাবে মা কি করে পাবে।কাকে দিয়েছে এই পড়াশুনার দপ্তর।বুঝলে মা এই দপ্তর সামলানো ঐ কার্তিককে দিয়ে কি সম্ভব?

কার্তিক। পারছিনা মা পারছিনা।এ ভাবে চলতে থাকলে আমি পাগল হয়ে যাবো।

নারদ। নারায়ণ!এই নারায়ণ বাবু এখানে এসে খুব ভালোই কাজ করেছে। আমাদের তো চেতনা ফিরল না কি বলেন প্রভু?
শিব।হুঁ ঠিক কথা বলেছ নারদ । আমিও এই কম্পিউটার সামলাতে ।এই লেখা লেখি করে পাপ পুন্য হিসাব রাখা খুবই মুস্কিল।বলি শোন সব আজ থেকে রে যার দপ্তরে পূর্বে ছিলেন সামলাবেন।আজ এই মর্তের নারায়ণের সামনে আজ আবার নতুন করে কৈলাসে পদ বদল করা হল।
অসূর।আর আমার ঐ চাকরি টা ঐ দাঁত গিজূড়ে পড়ে থাকা তার বহাল থাকলে তো বাবা মহাদেব।

লক্ষী ।নিশ্চয় থাকবে অসূর দাদা।আপনি মনের আনন্দে আবার সেই হাসি দিতে পারবেন।
অসূর।(হাসি দিয়ে)জয় কৈলাস বাসীর জয়।জয় মর্তের নারায়ণ বাবুর জয়।

নারায়ণ।জয় সবার হোক। কিন্তু আমার চাকরি টার কি হল?
সরস্বতী। আপনার চাকরি পেয়ে যাবেন।আপনি মর্তে গিয়ে দেখবেন আপনার চাকরির জয়েন্ট লেটার পৌঁছে যাবে।

নারায়ণ।জয় কৈলাস বাসির জয়।জয় কৈলাসের প্রতিটি দপ্তরের জয়।

নারদ।মো-না না না। মোবাইল নয়। নারায়ণ !নারায়ণ আপনি আন্দোলন করে কৈলাসের পদ বদল করে ফেললেন মানব বাবু।এটাই হল আসল কৈলাসে পদ বদল। নারায়ণ! নারায়ণ।

(সকলের হাসি)(ফ্রিজ)

যবনিকা
…..
কৈলাসে পদ বদল নাটকটি নিছক এক কল্পগল্প মাএ।তা শুধু মাত্র আনন্দ দানের জন্য রচনা। বিন্দুমাত্র ভূলভ্রান্তি হয়ে থাকলে আমি ক্ষমাপ্রার্থী।

Spread the love

You may also like...

error: Content is protected !!