মার্গে অনন্য সম্মান দেবাশিস বসু (সর্বোত্তম)

অনন্য সৃষ্টি সাহিত্য পরিবার
পাক্ষিক প্রতিযোগিতা পর্ব – ০৯
বিষয় : প্রেমের ঋতু বর্ষা
তারিখ : ২৫\০৮\২০২০

বর্ষাসুন্দরীর অমৃত সন্ধানে

বাতাসের সোঁদা গন্ধে মাটির যৌনতা
খুঁজে ফেরে নিষেক মুহূর্ত
একে একে কীটেদের দল ত্রিভঙ্গ শরীরে
সর্পিল-খালি করে পাতাল প্রাসাদ
নির্জন প্রাসাদে মাটিবউ সঙ্গমের প্রতীক্ষায়
ভেলভেটে শরীর মুড়ে পিঁপড়ের দল
ঝুলে থাকে অপ্সরাগন্ধী জুঁইয়ের শরীরে-
উড়ন্ত পুরুষ ডানাহীন সঙ্গিনীর খোঁজে-
সারাটা পৃথিবী জুড়েই
এখন নিষেকের উৎসব

সে এলো ছুট্টে মাঠ পেরিয়ে-
তির্যক গতিতে
মাছিরা প্রেমে পড়ে লিচুদের
ভালোবাসার ইমোজি ভেবে
কলাবউ ঘোমটার খোলসে
মিলনবারি আঁজলা ভরে
সবুজ ডালপাতার অবাধ্য নাচন
পেন্ডুলাম দুলে যায় সময়ের রথে
কেমন করে বৃষ্টিফোঁটাগুলো
পাতার সবুজ বেয়ে গড়িয়ে আসে-
নরম শব্দে মেশে উদ্গ্রীব ধূলিকণার সাথে
রাস্তার ধুলো কেমন যেন
বাসরে বধূর কন্ঠহার-
“শব্দগুলো সরব হোক,কন্ঠস্বর নীরব
বৃষ্টিতেই তো ফুল ফোটে,বজ্র নিষ্ফল
সবচেয়ে অন্ধকার মেঘেই লুকিয়ে থাকে
অতি ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস
দুর্দশায় উড়ে আসে পরীর দল-
দুঃখেও আশা একরাশ”
বর্ষাসুন্দরী ছুটে চলে- দুর্দম,দুর্বিনীত
হৃদস্পন্দন বদলে যায়
কামারশালার হাতুড়ির শব্দে
সব ক্ষত লুকিয়ে থাকে হৃদয়ের গভীরে
মেঘেদের আড়ালে লুকিয়ে থাকে
সূর্যের সব রশ্মি
অবগুণ্ঠনের আড়ালে কাঁদে দেবদূত
ঝরে পড়ে স্বাতী নক্ষত্রের চোখের জল-
মুক্তগর্ভা হবে হ্রদের ঝিনুক
আমাদের দৃশ্য অদৃশ্য পুরো বিশ্বব্রহ্মান্ড
যখন নিদারুন অট্টহাসে- ক্রন্দনেই তো
হাসির মিষ্টতা-বৃষ্টিতে বিজলির
তার ওষ্ঠ স্পর্শ করলো
আমার কপোল চিবুক অধর
বুক ছুঁয়ে নেমে গেলো
শরীরে শীতল শিহরণ
সে যে বর্ষাসুন্দরী
প্রেয়সী ছোটবেলার
ক্ষুধার্ত শিশু চলে মায়ের কাছে
তৃষ্ণার্ত আমি-
চলেছি মেঘেদের দেশে
আকণ্ঠ অমৃত সন্ধানে
Spread the love

You may also like...

error: Content is protected !!