কবিতায় পদ্মা-যমুনা তে আনোয়ার রশীদ সাগর

বিষণ্ন জ্যোৎস্নারাত

আকাশের ঝর্ণাজলে প্লাবিত কুয়াশা মাখা রাত
নেশাতুর আঁকা-বাঁকা বাঁশি সুর তোলে শীতবিছানায়,
চন্দ্রালোয় ভিজে যায় ফেলে আসা স্মৃতিগুলো-
কুশুরের খোলার পাতাড়ির শব্দে ভুলে যাই নাগরিক জীবনের জয়গান,
ডাডা শব্দে গোল চাদরে ঘেরা ডাঙে বাঁধা গরু দৌড়ায়
বাঁশবাগানে জোনাকির মত জ্বলে আবছায়া মনের পর্দায়
গুছিয়ে দেওয়া কুশুর পিষে কলকল স্বরে রস পড়ে পাশে রাখা টিনে
কিশোরের কলতানে হিহি হাসিতে ভরে ওঠে
পাটকাঠির ঘর;
বাপেরা বলে,এই বদরা বাড়ি যাইয়ি ঘুৃমাগা,সকালে যাবি স্কুলে।
লুকো চুরি করে ঘুমানোর ভানে কেটে যায় রাত
বিশ্রামে থাকা রাখালের বাঁশির সুরে।
ভোর হলে জ্বালানো গুড়ের গন্ধে জেগে উঠি নৈটানা খাওয়ার লোভে,
সূর্য উঠার টানে অপেক্ষায় থাকি, মু-আলো আর সেদ্ধ বেলের গুড়ে পোড়া ঘ্রাণের।
নাগরিক জীবনের জটিলতায় শূন্যবুকে ভেসে ওঠে
মেঘলা আকাশ ও জ্যোৎস্নাভরা রাত।
Spread the love

You may also like...

error: Content is protected !!