T3 ।। কবিতা পার্বণ ।। বিশেষ সংখ্যায় আলোক মণ্ডল

১| লেবু পার্বণ

পথের দু’ধারে স্তুপিকৃত ভিটামিন-সি
পুরু আস্তরণের নীচে রসবতী
রঞ্জাবতী
ঠোঁট
পুরুষ্টু রোদের মতো ফালিফালি আহা!
রোদের পরত খুলে ক্রমাগত শুশ্রূষা
ছড়ানো ,
গোপন ভালোবাসা ইড়া পিঙ্গলা সুষুম্নার পথ বেয়ে
গভীর উত্তেজনার স্রোত,
সীমা হীন প্রশান্তি আঁকে প্রিয় ল্যান্ডস্কেপ।
গোলগোল পৃথিবীর গোলগোল মানুষ
যতদিন খেতে পায়নি ভিটামিন
খাননি…হো, খান নি লেনিন!
সমব্যথী শুশ্রূষা ক্রমে গড়িয়ে পড়ে কমলা বিছানার পাশে- পৌষপার্বণ।

২| রাঙামাটি শীলাবতি নদী

সে ছিল এক গতজন্মের কবিতা ফসল
তাবু খোলা হয়ে গেলে পর
হরিণটুলির মাঠ একা-একা জ্যোৎস্নায়
পৌষের নবান্ন ঘ্রাণে পার্বণ সাজাতো কত!
কেটে নেওয়া ধানের আখড়ায়
পালুইয়ের ফাঁকে-ফাঁকে লুকোচুরি
একটি মানুষের তরে একটি মানুষীহৃদয়!
পিঠেপুলি, টুসু রাত, হিমজল তীব্র অ-সুখ ক্লিভেজে নতুন খেলা
স্বরচিত দুঃখবোধ পরাবাস্তব ধোঁয়া
আর ধোঁয়াশা পরব..
বর্গী এল সিন্ডিকেট তারপর তীব্র অভিঘাত।
রজত মুল্যে ডালা ভরে নিয়ে গেল
ভাদুটুসু মকরের ছৌ,
হিমেল হাওয়ায় নাচল নাচন বারোমাস তেরো পার্বণ!
হরিবোল রসকলি নফরমেলা
সব কিছু খোলামেলা আছে যে-যেমন
কোমরে আঁচল বেঁধে রাঙামাটি শীলাবতি নদীটি আজ কই!!
Spread the love

You may also like...

error: Content is protected !!