কাব্য কথায় অমলেন্দু কর্মকার

অর্থদেবতা

কলিকালে ঘরে ঘরে সবে যাঁর পূজা করে
সে দেবতা বড়োই চঞ্চল |
এমন মানুষ নাই যে তাহারে পূজেনাই
তাঁকে ছাড়া জনম বিফল ||
সর্বধর্মে সর্বকর্মে থাকেন সবারই মর্মে
নানা পদ্ধতিতে আরাধনা |
দেবতার পরিচয় দিতেও আশঙ্কা হয়
“অর্থ” রূপে যায় তাঁকে চেনা ||
একশোর অধিক নাম টাকা, রুপি, ইউরো, দাম,
ডলার , রিয়েল, নূলট্রাম |
যে নামেই ডাকা হোক ঘোচায় যে দুঃখ-শোক
অবিলম্বে পুরে মনষ্কাম ||
চর্মাসনে অবস্থান মুদ্রা,নোটে মূর্তিমান
‘চেক্’ রূপে অন্তর্নিহিত |
রাতারাতি অবস্থার রূপান্তরে দেবতার
আশীর্বাদ তুলনা রহিত ||
এ দেবতার আজকাল অবতার ভার্চুয়াল
অন্তর্ধানে সর্বত্র বিরাজে |
নিমেষেই ভক্তদের মনোবাঞ্ছা পুরনের
অলৌকিক লীলা বিশ্ব মাঝে ||
গরীবের রাজা হওয়া বিশ্বের বিশ্বাস পাওয়া
সকলেই ওনার করুণা |
এ দেবের আশীর্বাদে চোরও তার অপরাধে
বেকসুর, দোষী অন্যজনা ||
Spread the love

You may also like...

error: Content is protected !!