T3 || কোজাগরী || বিশেষ সংখ্যায় আমিনুল ইসলাম

মায়ের আলেয়া ও আলোর মৃৃত্তিকা


প্রতিমার দেহে তুলি ভাসিয়ে দিতেই
ঘাটে নৌকো এসে গেল
রং মুছে মাঝি হাল ধরলেন

সেই থেকে আর প্রতিমার শরীরে তুলির আঁচড়ে
নদী বইছে না…


পেয়ালায় অবশিষ্ট রং শুকিয়ে গেলে
রুখা-শুখা-ভুখা তুলির জিভে
খেলছে ১টি কুকুর

সংবরণ থেকে আর ১টা বৈশাখ উবে যাচ্ছে
বর্ষার সংস্করণ পাথরে খোদাই করা নিষিদ্ধ যোনি
স্তন থেকে ফোঁটা ফোঁটা প্রসবব্যথা আঁতকে উঠছে


নির্জন থেকে একটু দূরেই কোলাহলের দরজা
জানালা দিয়ে জানাশোনা উপদ্রুত বাতাস
টেবিলক্লথে চাপা দেওয়া আগুন জাগাতে চায়

ডালটি নিরাময়ের ছায়া বিতরণ করলে
নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠ হয়ে ওঠে বিচারালয়


তদানীন্তন আস্তিনের অদৃশ্য বিকেল থেকে
মোমবাতিগুলো সন্ধায় পদার্পণ করলেও
ব্যারাকস্কোয়ারে এখনো রংচং
মাখানো আপেলের ফুলস্কেপ

ওখানেই আন্দোলিত পাতা গল্পগুজব
আড্ডাবাজি হল্লা-গোল্লা পাকাপোক্ত
নবমীর চাঁদ তরতর বুকের গভীর
প্লাবন ~
অজ্ঞাতনামা ঝরনার উচ্ছ্বাস
আবেগ-ঢাকা মেঘগুড়গুড়
নদীনালা হাঁপাচ্ছে~


পর্দানশিন রক্তকরবীর
মনে হলো গোলাপের কথা
বাদামের খোসায় মেখে যাওয়া বাতাসের বোকামি
নকল করছে তুলি
হালকা আলোয় দেখা জানালা উজার করে শুনিয়েছিল
সেইসব রংখেলা দুপুর
দাঁতে জমে থাকা শব্দোচ্চারণের স্পষ্ট হাওয়ায়
দরজা থেকে ১টি উলঙ্গ নদী নেমে এসেছে..


পায়ের পাতা ভিজতে ভিজতে ধড়ফর বুক অবদি জল
নিশ্বাসের সাথে কিছু নিঃশর্ত খুচরো পয়সার আলাপ
বিনিময়ে ব্যবসা-বানিজ্য ধারাপাতের আঙুলগুলো গুনে ফ্যালে

১টি শূন্য দিয়ে পৃথিবী আঁকা হলে
বর্ষা দিয়ে মৌসুমি আর কঠিন দাবদাহে চৈত্রের
বাগানে কৃষ্ণচূড়ার দামামা বাজবে


আখেরের কথায় জায়নামাজ বিছিয়ে দিচ্ছে সকাল
ফজরের নামাজ শেষের দোওয়ায় কিছু উলঙ্গ ফুল
শাখাভর্তি মৌমাছিদের ডেকে নিচ্ছিল
দ্যাখা মাত্রই সালাম ফিরলেন

প্রতিমার হাতে মধুর বাটি
শরীরে নানান আল্পনা
ছবিগুলো নিঃশর্ত বন্দিত্ব গ্রহণ করলো~


অশ্বগন্ধার তপস্যায় মন্ত্রমুগ্ধ সাধন-ভজন
সেলাই হচ্ছে সব মসৃন হাহাকার
মনের কলম করে আর১টি অঙ্কুর মাটিতে রাখা হল
ঘুমন্ত জলেও পুঞ্জিভূত জীবন

মরণ অব্দি শিলীভূত হতে হতে নিথর
শৃঙ্খলিত পুতুল
তারপর সহবাসে জল ও আতর
মাটির বিছানায় ছড়িয়ে পড়ে…


মন্ত্রমুগ্ধ বসে আছো ধ্যানে
সামনে মাটির প্রতিমা প্রতিভূ হলেন

চোখ খুললেই অন্তর্ধান ~
উপন্যাসের চিত্ররূপ
ব্যক্ত করছে গাছের পাতা

১০
শাখাপ্রশাখায় রঙিন আলো ফুটছে
হাঁসগুলো সাঁতরে চলছে বালিয়াড়ি

পাথরের চোখে ফুলের আলতো হাসি
দেহের আলিঙ্গনে মোলায়েম চুঁয়ে পড়ছে
কতশত রক্তের তির্যক ফোয়ারা

আর দ্যুতি ছড়ানো উঠোনে কলাবউ
শাড়ির আঁচলে আগলে রেখেছে রামধনু

Spread the love

You may also like...

error: Content is protected !!