সাপ্তাহিক ধারাবাহিকে অনিরুদ্ধ গোস্বামী (পর্ব – ১২)

অদৃশ্য প্রজাপতি

আমার কটেজ এ ডিনার টা আনিয়ে নিলাম। ডিনার এর পর বিন্সি বললো সে ভয় পাবে একা।
বিন্সি :নীল আই ফিয়ার তো স্পেন্ড দি নাইট অ্যালোন ইন ময় কটেজ ।ইটস উইথিন জঙ্গল ।ক্যান ই স্লিপ হেয়াৰ ?
নীল :দেন ওহের ডু আই স্লীপ ?এত ইওর কটেজ ?
বিন্সি :হেসে, আই ক্যান স্লীপ বিসাইড ইউ উইথআউট এনি সিঙ্গেল থট অফ হেজিটেশন !
নীল :(ফার্মলি সেড ) নো .আই শ্যাল ড্রপ ইউ টু ইওর কটেজ ।লক ইনসাইড প্রপারলি ।কল মি ইন কেস অফ ট্রাবল ,এনি টাইম ।
তাকে তার কটেজ এ দিয়ে চলে আসছি ,বিন্সি বললো
বিন্সি:নীল দো যু আর মাই বস ,বাট আই ডোন্ট নো ওহাই ইওর আলুফনেস ড্রস মোর টুওয়ার্ডস ইউ !
বলে ঘনিষ্ট ভাবে বাম হাত দিয়ে আমার কোমরে জড়িয়ে ধরে ডান হাত মাথার পেছনে চুলে হাত দিয়ে তার দিকে টেনে নিলো। দ্রুত নিঃস্বাস চলছে। মাদকতা গ্রাস করছে।
তার কাঁধে হাত রাখলাম আর শান্ত ভাবে বললাম “বিন্সি আই নিড সাম টাইম। গুড নাইট “।
ভালো ভাবে লক করতে বলে দরজা টা টেনে বেরিয়ে এলাম ।

প্রতিদিনের মতো ঠিক সকাল ৫:৫০ এ “SIRI ” জানান দিলো বিছানা ছাড়তে হবে। বাইরে এখনো অন্ধকার। বেরিয়ে এসে ডেক চেয়ার এ বসলাম।শিরশিরে ঠান্ডা হাওয়া দিচ্ছে সুন্দর এক নাম জানা ফুলের গন্ধে জায়গা তা ভোরে আছে। সূক্ষ অথচ স্পষ্ট। “ফয়েজ আহমদ ফয়েজ ” এর বিখ্যাত কবিতা “হাম দেখেঙ্গে” র কয়েকটি লাইন মনে এলো
…..বাস নাম রহেগা আল্লাহ কা
যো গায়েব ভি হয় হাজির ভি
জো মানসার ভি হয় নাজির ভি …..

হোটেল স্টাফ রা যাতায়াত শুরু করেছ। জঙ্গলের মধ্যেই দিয়ে দৌড়াতে দৌড়াতে পৌঁছে গেলাম ব্যাক ওয়াটার এর দিকে। যতদূর দেখা যাই জল আর তার মাঝে ভেসে আছে চর। চরের ঘাস এর রং লাল ডিঙি নৌকা দিয়ে জেলেরা মাছ ধরছে। ব্যাক ওয়াটার এর দিক টা খুব ই নীরব যেন সিম্ফনি শুরুর আগের মুহূর্ত। বসে পড়লাম আর শান্ত জলের দিকে চেয়ে রইলাম।
একটু পরেই আকাশ লাল করে সূর্য উঠে পড়লো আর পাখির কাকলি তে জায়গাটা ভরে উঠলো।
বিন্সি আজ আর ওঠেনি। ব্রেকফাস্ট টেবিলে দেখলাম না। চিন্তা হচ্ছে। কালকের ঘটনা টা কতটা প্রভাব ফেলবে জানিনা। প্যাকেজে হাউস বোট সেলিং নেওয়া আছে। ৬ ঘন্টা ঘোরা হবে ,সঙ্গে থাকবে লাঞ্চ। বিন্সি র দরজায় নক করলাম। দেখি চোখ ফুলে আছে। জিজ্ঞাসা করলাম কি হয়েছে? সব ঠিক আছে কিনা।
বিন্সি :ইটস ওকে বস ।
নীল : দ্যাটস গুড। লেটস মুভ এট হাউস বোট।
বিন্সি :আই ডোন্ট ওয়ান্ট টু গো বস। আই এম রিয়েলি নট ইন রাইট মাইন্ড ।
নীল : বিন্সি নো মোর ডিসকাশন। উই কেম টুগেদার এন্ড উইল সেইল টুগেদার।
এরপর বিন্সি আর বেশি কিছু না বলে তৈরী হতে চলে গেল। একসাথেই উঠলাম। কিছুক্ষন পরে সব যাত্রীরা উঠে গেলে যাত্রা শুরু হলো। বোট টা একবার ঘুরে ছাদে বসার ডেক চেয়ার নিয়ে বসলাম। বিন্সি পাশেই বসল।। সাদা শার্ট প্যান্ট আর কালো চশমা সঙ্গে সাদা স্নীকার। পাশের ডেক চেয়ার এ বসে রোদ চশমা তা মাথায় তুলে নিলো ।
খুব ই চুপচাপ। কেউ নীরব থাকতে চাইলে তাকে থাকতে দেওয়া উচিত।
আকাশের দিকে মেঘের আনাগোনা দেখতে দেখতে আর নৌকার জল কেটে এগোনোর শব্দ শুনতে শুনতে চোখ লেগে গেছিল।
বিন্সি কিছু ভেবে আস্তে আস্তে বললো :বস আই এম সরি ফর দি ইস্টার্ডে নাইট ।
নীল :ডোন্ট বি। ইউ হ্যাভ বেষ্টওড মি টি প্রেসিয়াস গিফট -ইওর হার্ট ! কোশ্চেন ইস “এম আই রেডি ফর দেট ওর নট” ।
মেঘ এর আড়াল থেকে সূর্যের আলো দেখা যাচ্ছে।
বিন্সি আমার হাতের ওপর হাত রাখলো আর বললো—
বিন্সি : নীল …..উইল ওয়েট ফর ইউ, এভার …..
বিন্স আগের মতোই সহজ হচ্ছে।
আমি রবিবারের চেরাই এ বালিয়াড়ি তে মন দিয়েছি , এই ব্যাক ওয়াটার তো সত্যিই শান্ত।
কটেজ এ ফেরার সময় বিন্সি জিজ্ঞাসা করলো :হু ইস ইওর ক্লোসেস্ট ফ্রেন্ড ?
মুহূর্ত চিন্তা না করে বললাম :মাই ফাদার ।
বিন্সি :সারপ্রাইসড ..নীল আই উড সে ইউ গট এ গ্রেট ফ্রেন্ড ?
নীল :ডিউরিং ময় টিনস ডেস হি প্রোএকটিভলি ডিসকাসড এন্ড ক্লিয়ারিং মেনি কিউরিওসিটি এন্ড ডাউট অফ দোস ডেস …ইউ নো ..এবাউট গার্লস ,সেক্স এন্ড রেলশনশিপস ,হরমোনাল চেঞ্জেস । এভেনচুয়ালি আই অল্সো শেয়ার্ড মেনি থিংস এস ময় ট্রাস্টেড এডভাইসর ।
বিন্সি :দ্যাটস হোয়াই ইউ হ্যাভ লিমিটেড ফ্রেন্ডস ।

আজ রবিবার ,বাড়িতে ফোন করার দিন। বিন্সি কে মনে মনে ধন্যবাদ দিলাম ।আথিরার ব্যাপার টা বাবার সাথেই শুধু আলোচনা করা যেতে পারে । আথিরা একটা আবিষ্কার -নিজেকে খোঁজার। সে না আসলে জীবনের একটা দিক হয়তো অজানা থেকে যেত।
রাতে একথা সেকথার পর বাবাই জিজ্ঞাসা করলো ” কিরে তোর সেই টেম্পল গার্ল এর কি খবর “?
নীল: কোনো খবর নেই বাবা। চেরাই এই শেষ দেখা। এরপর যেন উবে গেছে পৃথিবী থেকে ?
বাবা : সে কি রে , কোনো সমস্যায় পরে নি তো?
নীল: কোনো যোগাযোগ তারপর করতে পারিনি। ডেড সাইলেন্স ফ্রম হার।

Spread the love

You may also like...

error: Content is protected !!