সাপ্তাহিক ধারাবাহিক উপন্যাসে অভিজিৎ চৌধুরী (পর্ব – ৫)

না – মানুষের সংসদ

ছোট্ট একটা পাখি তখন পাতা থেকে চুঁইয়ে পড়া বৃষ্টির জলে চান করছে ।
পক্ষীরাজকে না পেয়ে আর বাবার অন্যমনস্কতার সুযোগে মন একটা কাগজের নৌকা তৈরি করে ফেলেছে । আবার বৃষ্টি নামল ঝমঝমিয়ে । বৃষ্টি তার গায়ে পড়তেই বুধু টগবগ টগবগ শব্দ করে শান বাঁধানো রাস্তায় এলোমেলো ছুটতে শুরু করল । তাই দেখে মন খুব মজা পেল । সে হাততালি দিয়ে উঠল ।
বিমান এবার রেগে গেল মেয়ের ওপর ।
কি কাণ্ডটা করলি তুই ! সুখেনকাকা যদি বুধু কে আর খুঁজে না পায় !
এবার মন বলল,
বুধু তো আসলে পক্ষীরাজ ঘোড়া ।
আমি ছাড়া আরো একজন জানে ।
কে সে ?
সিংহি মামা ।
এইসময় মনের ‘মা’ চিত্রলেখা ঘরের বাইরে বেরিয়ে এসেছে বৃষ্টি দেখবে বলে ।
বিমান বলল,
মন – তুই চল্লিশটা অংক শেষ করেছিস্ !
চিত্রলেখা বলল –
কয়েকটা করেই বলল হাত ব্যথা করছে, বাবার কাছে যাব ।
এখানে এসে থেকেই ডাকছে – পক্ষীরাজ, পক্ষীরাজ ।
চিত্রলেখা বলল,
মন – তোকে কে বলেছে পক্ষীরাজের কথা !
সেই দাদুটা – কোলকাতার দাদু ।
বিমান কিছু বলতে যাচ্ছিল, চিত্রলেখা ইশারায় চুপ করতে বলল ।
তুমি কি করে তাঁকে দেখলে !
বাঃ – কাল রাতে স্বপ্নে

( চলবে )

Spread the love

You may also like...

error: Content is protected !!