• Uncategorized
  • 0

সুনীতি দেবনাথের কবিতা

তাঁর কাছে কবিতা হল জীবনে আহৃত সত্যের সুরক্তিম প্রকাশ। কেউ কেউ উপলব্ধ সত্য থেকে মুখ ফিরিয়ে থাকেন। কেউ সটান সামনে দাঁড়িয়ে থাকেন। কবি সুনীতি দেবনাথ সেই গোত্রের একজন স্পষ্টবাদী কবি।যাঁর জন্ম ১৯৪৫-এর ২৮ জানুয়ারি, যিনি কখনও কোনও রক্তচক্ষুকে পরোয়া না করে লিখে গিয়েছেন। তাঁর সৃজন পাঠককেও অনভিপ্রেত ও কঠোর সত্যের মুখোমুখি দাঁড় করিয়ে দেয়। কবি সুনীতি দেবনাথ কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বি.এ অনার্স, এম.এ, বি.এড করার পরে শিক্ষকতায় যোগ দেন। এছাড়া তিনি ওয়ার্ধা থেকে হিন্দিতে কোবিদ পরীক্ষায় সারা ভারতে দ্বিতীয় স্থান অধিকার করেন। ১৯৮৬ তে তিনিই ত্রিপুরায় প্রথম CCRT থেকে জাতীয় পুরস্কার লাভ করেন। বর্তমানে তিনি অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষিকা। তাঁর শারীরিক অবস্থা বর্তমানে ভালো না। আমরা তাঁর সুস্থতা কামনা করি।

কবিতার কান্না

কবিতাটা উড়িয়ে দিলাম আকাশে
প্রলয়ঙ্কর আকাশে তখন মেঘের সজ্জা
দৃষ্টির সীমান্ত পেরিয়ে মেঘের গা ছুঁয়ে ছুঁয়ে
কবিতা একে একে বাতাসের স্তর পেরিয়েছে
মহাকাশে উড়ছে মনে হয়
তাকে আর দেখতে না পেয়ে
বুকটা কি এক বেদনায় হু হু কেঁদে উঠলো
অথচ কবিতার সঙ্গে শর্ত ছিলো
মেঘের সঙ্গে খেলে ফিরে আসার
মেঘের সঙ্গে শর্ত ছিলো বৃষ্টি দিয়ে
সারা পৃথিবীতে কবিতা ছড়িয়ে দেবার
কথা রাখেনি কেউ তাই বেদনা
আজ রাতের আঁধারে ঘুম আসেনি
চাপা যন্ত্রণায় কেবল এপাাশ ওপাশ
হঠাৎ করে কবিতা এলো রক্ত মেখে
কি হয়েছে কোথায় ছিলে জবাব নেই
এতো রক্ত কেন এতো কান্না কেন
সব মানুষের রক্ত লাল
সারা দেশটা রক্তে লাল
রাজপথ গলিপথ বাড়ির অঙ্গন
ঘরদোর সব লালে লাল
ওগো বৃষ্টি ঝরো তুমি ধুয়ে নাও সব রক্ত
মিশরে স্ফিংক্স অট্টহাসি হেসে উঠলো
শেষ মমি গলে প্যাপিরাসে মিশে গেলো

Spread the love

You may also like...

error: Content is protected !!