প্রবন্ধে রতন বসাক

” বসন্তের আসার আগে থেকেই অনুভব করা যায় । “

আমাদের এই ধরাতে একটা বছরে ছ’টা ঋতুর পরিবর্তন আমরা সবাই দেখতে পাই । এক একটা ঋতু বলা যায় দু’মাস ধরে অবস্থান করে । একটা ঋতুর যেতে না যেতেই তার আগে থেকেই আমরা অনুভব করতে পারি যে সে আসছে । চারিদিকে তার জন্য পরিবেশের একটা পরিবর্তন আমরা দেখতে পাই । প্রত্যেকটা ঋতুই যে সবার ভালো লাগে তার কোন মানে নেই ।
অনেকেই বলে থাকেন যে ঋতুর মধ্যে বসন্ত হলো ঋতুর রাজা । এই ঋতুকে দেখা গেছে মোটামুটি ভাবে বেশিরভাগ মানুষই পছন্দ করেন । প্রচন্ড শীতে কষ্ট পাওয়ার পর ধীরে ধীরে শীতের কম হতে থাকে । আর সুন্দর মিষ্টি বসন্তের আগমন হয়ে যায় আমাদের এই ধরাতে । প্রকৃত পক্ষে মাঘ ও ফাগুন মাস হলো বসন্ত ঋতুর সময় ।
শীত ঋতুতে গাছের পাতা ঝরে যাওয়ার পর প্রত্যেক গাছেই নতুন সবুজ কচি পাতার আগমন হয় । চারিদিকে সবুজের সমারোহ দেখা যায় । বাগানে, দূর-দূরান্ত ও চলার পথের দুপাশে গাছে নতুন-নতুন ফুলের মেলা দেখা যায় । নানান রঙের ফুলের নানান সুগন্ধে সত্যিই পরিবেশটা একটা আকর্ষনীয় হয়ে যায় । সবার মনে যেন খুশিটা একটু বেশি বাড়তে থাকে ।
বসন্তের আগমনে ঠান্ডা ও গরমটা খুব একটা বেশি থাকে না । খেয়ে ঘুরে ও বসে থাকা সত্যিই এসময় ভালো লাগে । চারিদিকে পরিবেশের সৌন্দর্যর জন্যই কবিদের মন উদাস হয়ে যায় নতুন কিছু লেখার জন্য । বাগানে ও বিভিন্ন পার্কে প্রেমিক-প্রেমিকাদের এই সময় একটু বেশিই দেখা যায় । মনে হয় বসন্ত যেন এই সময় পৃথিবীতে একটু বেশিই ভালোবেসে ফুলে,ফলে ও ভালোবাসায় ভরিয়ে দেয় ।
বসন্ত আগমন মানেই যেন মনে হয় সবকিছুই পাওয়া যাবে এই সময় । মানব জীবনেও বসন্ত আসা মানেই, সে সেই সময় সব থেকে বেশি সুখী থাকে । সত্যিই বসন্ত একটা খুশির মেজাজ তৈরি করে দেয় সবার মনে । যত দিন যেতে থাকবে ততই যেন বসন্ত তার রূপ ও যৌবন ঢেলে দেয় পৃথিবীর বুকে ।
মনে হয় বসন্ত পঞ্চমীর পুজো বিভিন্ন স্কুলে ও পাড়ায় পাড়ায় দিয়েই যেন বসন্তের আগমনকে স্বাগত করা হয় । মনতো চায় চিরদিনই বসন্ত থাকুক আমাদের পৃথিবীতে ও সবার মনে । কিন্তু প্রকৃতির নিয়ম অনুযায়ী কোন কিছুই চিরস্থায়ী নয় । তাই এই সুন্দর বসন্তকেউ একদিন বিদায় জানাতে হয় । তবে আশার কথা হলো বিদায় জানাই বলেই, তার আগমনের অপেক্ষায় আবার থাকি আমরা সবাই ।
Spread the love

You may also like...

error: Content is protected !!