গুচ্ছকবিতায় সঞ্জয় কুমার মুখোপাধ্যায়

অপরিণত সমাধিস্থল

কিছুদিনের দেখা
একটু পাশাপাশি থাকা।
কথায় কথায় আকাশের রূপকথা গড়ে তোলা,
মেঘের আড়ালে পথ চলা।
সবটাতেই ছিল অজানা আকর্ষন,
সম্মোহিত ছিল এই মন।
তবু আজ পড়ছে চোখের জল,
মনটা ভেসে গেল সবটুকুই ।
ইহকাল পরকাল এখন হয়েছে,
              এক অপরিণত সমাধিস্থল।

ঊনপঞ্চাশের শেষবেলায়

ঊনপঞ্চাশের শেষে এসে, 
একটা পড়ন্ত বেলায় 
নিজেকে গুটিয়ে নিতে ইচ্ছে হয়।
সোনালি দিনের ভিক্ষুক হয়ে পথে চলায়,
চারাগাছের মহীরুহ হবার স্বপ্নতে অপেক্ষায় ।
তবু আগুন হতে চাই !
কালো মেঘের সব অপরাধ ক্ষমা করতে চাই !
ইচ্ছে হয় সূর্যের দিকে ছুটে গিয়ে,
পৃথিবীকে হাতের মুঠিতে কি ভাবে নেওয়া যায় ?
অনেকগুলো বিশালাকার ঢেউয়ের পরে
যখন চারিদিক বিধ্যস্ত হয়ে, 
                                   মন হয় অবিন্যস্ত।
তখন স্বপ্নের একটা মালা
ছয় ঋতুর সুগন্ধে ভরা,
সঞ্চিত প্রতীক্ষা হতে উঠে আসে চরমে,
বুঝি সে ভালোবাসা বুঝেছে মরমে মরমে।
Spread the love

You may also like...

error: Content is protected !!