• Uncategorized
  • 0

কবিতা -তে জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায় 

প্রাণীবিজ্ঞানে সাম্মানিক স্নাতক,শিক্ষাবিজ্ঞান ও বাংলায় স্নাতকোত্তর, বি.এড.। শিক্ষকতাকে তিনি নিছক পেশা না ভেবে অনেক বেশি কিছু ভাবতে ভালোবাসেন। অজস্র কবিতা,গল্প,প্রবন্ধ,আলেখ্য,সমালোচনামূলক লেখা,কয়েকটি নাটক এবং একটি অসম্পূর্ণ উপন্যাস। তাঁর বেশিরভাগ লেখাই দেশ-বিদেশের অজস্র নামি ও অনামি পত্র পত্রিকায় প্রকাশিত।

অন্য পুরন্দর

খ্যাতি বা অখ্যাতির সীমার বাইরে
একটি শীর্ণা নদী বেঁচে যেতে পারে।
অভিধানও তাকে উপ বলে দমিয়ে দিতে চায়।
কতটা সবুজ তার জমাট চাদর কতবার
দামাল হাওয়া তার লজ্জাবস্ত্রে টান দেয়
পরিদেহের রত্নভাণ্ডার আগলাতে তার
প্রকৃত যৌবন-তরল গড়িয়ে যায় নিম্নগামী
আকাশ বাতাস গাছ সব দেখে নেয়।
তবু সে দৈনন্দিন সংসার পাতে।

বিবিধ পদচিহ্ন ভেঙে দিলে চাবুক ঢেউ
কয়েকটি আত্মঘাতী দাগ লতার সুখে
ধরে নেয় বিরহের হাত।
এই যে অবিরল কথা বলাবলি ক্ষীণকণ্ঠ সুর
কয়েকটি পাখিও চেনে প্রতিবেশীজন
পুরন্দরের বারোমাস্যা গুনগুন বাজে।

Spread the love

You may also like...

error: Content is protected !!