• Uncategorized
  • 0

কবিতায় শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়

গফুর চাচা

আমার তখন উনিশ কি‍ংবা কুড়ি
বিয়ের পরে প্রথম গ্রামে ফেরা,
বাবার ছিলো প্রচুর জমিজমা,
টাকার পাহাড়, অবস্হা রমরমা ।
আকাশ জুড়ে টুকরো মেঘের ভেলা,
কাশের বনে হিমেল হাওয়ার খেলা ।
পূজোর তখন কয়েকটা দিন বাকি,
মা শুধোলো, খুকুকে আনবে নাকি ?
বাবা বলেন আমার সময় কোথায়?
পূজোর বোধন এসেই গেছে প্রায় ।
হঠাৎ তেড়ে ডাকেন গলা ছেড়ে,
কই রে গফুর, গেলি নাকি মরে ।
গফুর তখন পূজোর মণ্ডপে,
বাঁশ বাঁধছে মগডালেতে চেপে ।
ঝুপুস করে গফুর হলো হাজির,
হারামজাদা খেয়াল থাকে কিছু,
বাবার তখন গলা বেজায় উচু ।
খুকুকে আর কবে আনতে যাবি ?
গফুর শুনে আলতো লাল হলো,
খুকুর স্বপ্নে সবই এলোমেলো ।
বললে, কত্তা জুড়েই ফেলি গাড়ী ,
খুকু মা মোর আসবে বাপের বাড়ী ।
গফুর চাচা খুকুর হাত ধরে,
যতন করে তোলে গাড়ীর পরে,
হুরর্ ট‍্যেক ট‍্যেক গরুর গাড়ী চলে,
আপন মনে গফুর কথা বলে,
জানো খুকু ছোট্ট ছিলে যখন,
নীলপদ্ম এনে দিতাম তখন,
পদ্মমালা গেঁথে আলতো হাতে
ভোরের বেলা যেতে আমার সাথে,
দুগ্গামাকে বলতে করজোড়ে,
গফুর চাচা যেন না কভু মরে।
আজ ও গফুর চাচা বোধহয় তাই,
আমার মায়ের দোলা আনতে যায়।

বাড়ি কোথায় ?

কোথায় তোমার দেশ?
কোথায় দলিল দস্তাবেজ?
তোমার মাটির রঙ কি ঠিক?
তুমি রাসূল না সাগ্নিক ?
তোমার বৃষ্টি ভেজা মাঠ,
তোমার ঘরে জলের ঝা‍ঁট,
তোমার হাপুস  দুটি চোখ,
তুমি আমাদেরই লোক ।
তুমি একাত্তোরের আগে,
ছিলে বাংলাদেশের ভাগে,
আজ বিশ -এর দোরে এসে,
রাজা হিসেব কষে বসে ।
বাপ ঠাকুরদা আমার,
গড়েছে যা খেত খামার,
সব তোমার দেওয়া ঘাম,
কোথাও  নেইকো লেখা নাম ।
তোমার আকাশটাও নীল,
সেথায় ওড়ে গাংচীল ,
তোমার বালুর চরে ঘর,
তুমি তাই সকলের পর ।
রাজা যতোই চালুক দান,
তুমি করো না অভিমান ,
আমরা এই আকাশের নীচে,
থাকবো সবাই মিলে মিশে ।
Spread the love

You may also like...

error: Content is protected !!