কবিতায় তাপস ওঝা

অস্বস্তির তেলরঙ

প্রবণতাসম্পন্ন আদর-সোহাগে অন্তরঙ্গ
অস্বস্তি রয়েছে
বিলম্বিত চিত্রকলাগুলি সেইসব সোহাগের রঙ
আমোদে টুকেছে
টুকেছে কবিও
অস্পষ্ট পায়ের ছাপ
অস্পষ্ট হাতের ছাপ
অস্পষ্ট শব্দবন্ধ
সব
নীলাভ-সবুজ রঙে টুকে
আদরে সোহাগে
অস্বস্তির রূপরেখা এঁকে গেছে অন্তরঙ্গ আলাপের সেই নগ্নতায়।
কবিটিও!

তেমন শানিত নয়

আর সবচেয়ে অপ্রিয়
তোমাদের মৃদু আক্রমণ
অনাস্থাভাজন আমি
অসার্থক এই বসুন্ধরা কেন যে
রচনা করেছি!
আমার প্রাচীন পুঁথি গ্রামাঞ্চলে
শুধু পড়ে আছে।
তেমন শ্রাবণ মাসে
যখন সহজ জল
যখন হাঁসের কোলাহল
তেমন সহজ
তখন তো সভা শুরু হয়ে গেছে
তখন তো আমার নিন্দার প্রতীক্ষায়
বন্ধুগণ কান পেতে আছে
কিন্তু তোমার সে আক্রমণ
এত মৃদু-
যে আমি এতটা অর্থহীন
আমিও প্রভূত লজ্জা পেয়ে যাই!

অনবচ্ছেদ

আগামীকাল বলে কিছু থাকল ?
-কেউ প্রশ্ন করেছিল ।
‘আগামীকাল’ শব্দটি প্রতিধ্বনিত হল নিরেট দেওয়ালে
-কেউ কিছু বলল না ।
এরপরও নিশ্চিত মৃত্যুর ঘটনার ঘটবে এবং
উচ্চকিত হবে ‘অমর রহে’র শ্লোগান !
Spread the love

You may also like...

error: Content is protected !!