• Uncategorized
  • 0

কবিতায় চয়ন ভৌমিক

১)

বিরহ-প্রণয়

দু-প্রান্তে দু’রকম সকাল
আলো বাতাসে তীব্র ভেদ।
আমি ঘুম থেকে উঠে
সেতু গড়িয়ে দিই তরঙ্গের দিকে,
তুমি লুফে নাও দুধের প্যাকেট।
কেকা ও চুড়ির শব্দ মিশে যায় অমনি।
সংবাদপত্রে ভাষা বিনিময় হয় …
সাবেক জিজ্ঞাসার পাশে ঝুঁকে থাকে –
দশ-টাকার ফুল, ধুপ, মঙ্গলদীপ,
জবাবি খামে উড়ে আসে – প্রাতরাশের মেনু ,
– কাঙ্ক্ষা ।।

২)

স্বপ্ন

সাদা কালো দিনের শেষে
মনে থাকে না কিছু ।
অথচ, অসম্পূর্ণ এক খাতা খুলে
বসে আছে আগমনী
রঙ তুলি পড়ে আছে দূরে, উদাস পাথারে।
জানি না এত শীঘ্র কী করে ভুলে যাও সব?
কী করে ঘুমিয়ে থাকো, হে বাসনা বরফ,
নাতিদীর্ঘ তৃপ্তি ও না মেলা অংকের
পল্লবিত উত্তরমালা নিয়ে।
আমাদের তো কয়েক মুহূর্তের সাক্ষাৎ,
ও’টুকুর মধ্যেই, আশ্চর্য ঘোর জমে যায় জানো,
গয়নার বাক্সে ভেসে ওঠে প্রাক্তন হীরের ঝলক!
এখন জেগে আছি,
ম্যাজিক হারিয়ে গেছে, ভোর অপলক।

৩)

বিবেক 

তোমার আমার ঘরকন্নার দৃশ্যে
বিরতি চলাকালীন এক গেরুয়া গান
বেজে ওঠে আচমকা।
দুহাতে আয়না তুলে সম্মুখে ধরে,
টেনে ছিঁড়ে ফেলে রূপক, বাইরের সাজ।
পাপ ছিঁড়ে বেরিয়ে আসে পরিণতি,
প্রায়শ্চিত্ত পাশে এসে দাঁড়ায়,
হাত ধরে না।
ঘুম ভেঙে যায় ইহজন্মের।
Spread the love

You may also like...

error: Content is protected !!