T3 ।। কবিতা পার্বণ ।। বিশেষ সংখ্যায় উমা বসু

চিত্রিত পৌষালি

পৌষালি ভোর কুয়াশার চাদর জড়িয়ে তিরতির কাঁপে।
শুকতারা জাগে বেগুনী রঙা পূবালী আকাশে ।
ডানা ঝাপটে আড়মোড়া ভেঙে উড়ে যায়
শূন্য পিয়াসী পাখির দল।
কন্ঠে তাদের ঘুমভাঙানিয়া গান,
বুকে পোষা অনিশ্চিতকে ছোঁয়ার আনন্দ ।
বেলা বাড়ার সাথে সোনা ঝরা রোদ গায়ে মেখে
ফুলেরা রঙিন হাসিতে সুরভি ছড়ায়।
ফসলের ক্ষেতে লুটোপুটি খায় উত্তরা হিমেল হাওয়া ।
গাঁয়ের মেয়ে-বউ রা বড়ি দেয়,চাল বাটে,গুড় জ্বাল দেয়।
শিরশিরে হাওয়ায় চুল ওড়ে ।
কিছু স্বপ্ন পথ হারায় , কিছু পায় দিশা।
জীবন এগিয়ে চলে বাঁচার সাধনায় ।
ছুটির দুপুর খিলখিল হেসে ওঠে পশমী পোশাকে সেজে।
রান্নাঘর ছুটে আসে মাঠে,ঘাটে,বনে।
সোনালী স্বপ্ন ভাসে সবুজের আঙিনায় ।
পিঠে, পুলি,পায়েসের মোহিনী গন্ধে তোলপাড় হয় পাড়া।
খিচুড়ি ও আসর জমায় জমজমাট চেহারায় ।
উৎসব উঁকি মারে প্রতি বাড়ির বন্ধ দরজায় ।
কান্চনজঙ্ঘার শিখরে তুষার লীন ঘুমন্ত বুদ্ধ
শুভ্রতার আলো ছড়ায় পৃথিবীর বুকে ।
লালপোশাক হাসিমুখ বৃদ্ধের উপহারের আশায়
প্রহর গোনে অজস্র সবুজ মন।
ঈশ্বর পুত্রের জন্মদিন পালন করে মুমূর্ষু পৃথিবী ।
সন্ধ্যা নামে কুয়াশার আঁচলে মুখ ঢেকে ।
দরজার বাইরের মানুষেরা উত্তাপ খোঁজে পথবাতির নীচে।
কখনো নচিকেতা কেউ নিয়ে আসে আগুনের গোপন সংবাদ ।
ধিকিধিকি আগুনের হলকায় লেখা থাকে
বেঁচে থাকার অনমনীয় সংকল্পের আখ্যান ।
পৌষালি রাত ঝিমোয়,নত হয়
সেইসব অগ্নিশুদ্ধ পায়ের তলায় ।
Spread the love

You may also like...

error: Content is protected !!