কবিতায় তাপস দাস

স্বপ্ন – প্রলাপ

স্বপ্নেরা আসে না বহুকাল … আদিগন্ত জুড়ে কেবলই কালো ছায়া, পরতে পরতে মেঘ আর কুয়াশা জমে থাকে। স্বপ্নে রা আসে না বহুকাল… আমি শুধু অন্ধকারে, নৈঃশব্দ্যের বীজ রাখি বুনে —

যে ছবি আঁকা ছিল অদৃশ্য দেওয়ালে… সেখানে ঘন মাকড়সার জাল, গোপন কান্নার বিন্দু বিন্দু জলদাগ ফুটে আছে… চারদিকে ছড়িয়ে আছে মুহূর্ত আঁকার মৃত পালক।

মাঝে মাঝে গভীর রাতে বৃষ্টি নামে… চোখে লাগে ঘোর… আশ্চর্য এক ঘুম জড়ানো চোখে জানলার কাছে যাই… পাল্লাগুলো খুলে দিই বেমালুম, বৃষ্টি আসে ছুটে… মুহূর্তে ভিজিয়ে দেয়, সারা শরীর… সমস্ত লোমকূপ জুড়ে বয়ে যায় শিহরণ… আচম্বিতে। স্বপ্নের ঘোর যায় কেটে…

অথবা তীব্র শীতের রাতে, যখন ভেসে থাকি নদীজলে ভাসা নৌকোয়… জল ছুঁয়ে বয়ে যাওয়া সূঁচালো বাতাস বিঁধে গায়, পলকে স্বপ্ন যায় ছুটে… চেয়ে দেখি ভাঙা ভাঙা স্বপ্নেরা মিশে আছে চাঁদ ভাঁঙা জলে… সব যায় রসাতলে… স্বপ্নেরা আসে না আর, বহুকাল ধরে…

শুধু জেগে থাকে এক আশা ফুল… বৃষ্টি রাতের শেষে অথবা শীতের তীব্র শিশিরপাতের পরেও। সকালবেলা চেয়ে দেখি… ঝরে পড়ে বিন্দু বিন্দু জল, ফুল চুঁয়ে…

Spread the love

You may also like...

error: Content is protected !!