গুচ্ছকবিতামূলে রতন বসাক

১। ভালো কর্ম

ধরার মাঝে আসা যাওয়া প্রভুর হাতে থাকে
তাঁর আদেশ শুনলে পরে যেতেই হবে তাকে,
ভালো মন্দে জীবন কাটে সবাই থাকি মেতে
যতই আয় করি না কেনো রেখেই হবে যেতে ।
চলার পথে কঠিন রোগ আসতে পারে ভাই
সজাগ থেকে মনের জোরে এগিয়ে যাবে তাই,
দেশ বিদেশে এখন দেখি করোনা রোগ হয়
প্রভুর দোয়া চাইতে থাকো পেও না কোনো ভয় ।
সাবধানতা সবার আগে মানতে হবে জেনো
নিয়ম নীতি আদেশগুলো মনের থেকে মেনো,
এমন করে চললে পরে সবার হবে ভালো
জীবন পথে সুখে থাকার দেখতে পাবে আলো ।
সুযোগে বুঝে কিছু মানুষ কালো বাজারী করে
তাঁর জন্য অনেক লোকে কষ্ট পেয়ে মরে,
মনে রাখবে উপর থেকে দেখেন সদা তিনি
মানুষ রূপে বানিয়ে এই ভবে পাঠান যিনি ।
তাইতো বলি অসৎ পথে আয় করো না আর
এমন করে চললে দেখো জীবন হবে ভার,
ভালো কর্ম করতে থাকো স্বার্থ ভুলে সব
আশিষ দিয়ে তোমার কাজে খুশি হবেন রব ।

২।  বুঝতে হবে

অনেক বছর কেটে গেছে
অন্যায় করার পর,
ন্যায়টা পেতে দেশে সবার
জ্বলে মনের ঘর ।
অপেক্ষাতে সময়গুলো
হচ্ছিলো যে শেষ,
মাতা পিতার সাথে সবার
থেকে গেছে রেশ ।
অবশেষে ফাঁসি দিলো
দেখলো সারা দেশ,
বিচার পেলো ধর্ষণকাণ্ডের
বলছে সবাই বেশ !
যতই শাস্তি দাও না কেনো
কারো নেই তো ভয়,
নিজে থেকে শুধরায় না তাই
অন্যায়কাণ্ড হয় ।
নিজের মনে বুঝতে হবে
এগুলো ঠিক নয়,
সবাই যদি বোঝে তবেই
দেশের হবে জয় ।

৩। কাব্যের ক্ষতি

কবিতাতে লিখবে এমন
ছন্দ থাকা চাই,
পড়ার পরেই বলে যেন
মজা পেলাম ভাই ।
ছোট বড় পড়বে সবাই
লিখতে হবে তাই,
ভালো ছাড়া মন্দ শব্দের
কোনো জাগা নাই ।
সবাই যাতে পড়তে পারে
সেটাই লেখা ঠিক,
লেখার মধ্যে তুলে ধরো
সত্য কথার দিক ।
কিছু কবি লিখছে ছড়ায়
অশ্লীল শব্দ সব,
কাব্য কথায় বন্ধ করতে
উঠাও সবাই রব ।
ওদের জন্য কাব্যে ক্ষতি
তাইতো লাগে ভয়,
এমন করে চলতে দিলে
কাব্যের হবে ক্ষয় ।

৪। সময় করে

আমার স্বপ্ন আমার জীবন
ছিল তোমার জন্য,
আমায় যদি গ্রহণ করতে
হতাম আমি ধন্য ।
তোমায় আমি ভালোবাসি
বলি নিতো খুলে,
রেগে গিয়ে খারাপ ভেবে
চড়াও যদি শুলে ?
তাইতো আমি দেখে গেছি
অনেক দূরে থেকে,
মনের কথা বলতে তোমায়
পারি নিতো ডেকে ।
হঠাৎ করে মরণ একদিন
আমায় নিলো তুলে,
পেতাম যদি তোমার মনটা
দুঃখ যেতাম ভুলে ।
আসতে যদি সমাধিতে
নিজের মনে করে,
জীবদ্দশায় নাইবা পেলাম
শান্তি পেতাম মরে ।
তোমার থেকে কিছু সময়
দিও একটু গিয়ে,
বসে থেকে দেখার পরে
ভেবো আমায় নিয়ে ।
সময় করে সাদা ফুলের
রেখো একটি মালা,
মরে গিয়েও মনের থেকে
কমে যেতো জ্বালা ।

৫।  একই পথ

তোমার ধর্ম আমার ধর্ম
হয়তো ভিন্ন হয়,
সবার প্রভু হলেন তিনি
ধর্ম মতেই কয় ।
ভিন্ন রূপে ভিন্ন ভাবেই
মানি নিজের মত,
প্রভুর দোয়া পেতে হলে
সবার একই পথ ।
মানব রূপে জনম পেলে
শুদ্ধ রাখো মন,
মানবতার সাথেই চলো
বিজ্ঞ লোকে কন ।
হিংসা ভুলে সামনে এসো
মনটা করতে জয়,
একা আমি চলতে পারবো
সেটা সঠিক নয় ।
ফিরে যেতে হবেই সবার
প্রভু দিলে ডাক,
তবে কেনো বিদ্বেষ ভরে
উঁচু রাখো নাক ?

৬। ভেবে দেখো

চলছিল বেশ ভালোই আমার
হঠাৎ করে কি যে হলো !
সব হারালাম এক নিমেষে ।
কোন কিছু বোঝার আগেই
পরলাম আমি বদনামিতে,
এখন কি যে করি ?
ভেবে-ভেবে হচ্ছি দিশেহারা
মনের কষ্ট কারে বলি ?
দোষটা কি, ছিল আমার ?
আমার মতো সবাই করে
হয় না তাদের কোন দোষ ।
আমার বেলায় এমন কেন হলো !
বদনাম হলে একবার কোথাও
ভীষণ কঠিন সুনাম পেতে;
যতই করো কোন কিছু ।
কোথাও সুনামের সাথে চলতে হলে
দেখছি এখন সবাই করে,
পারিনি যেটা আমি ।
আমার মতো আমি থাকি
সত্যটাকে সোজা মনে বলে ফেলি,
এটাই আমার দোষ ।
কারো বদনাম করা খুবই সহজ
সুনাম পাওয়া ভীষণ দুর্লভ,
তাইতো একটু ভেবে দেখো ।
Spread the love

You may also like...

error: Content is protected !!