কবিতায় ছবি ধর

শ্রাবণহারা

শ্রাবন হারা চষা জমি উদাস হয়ে চেয়ে আছে উন্মুক্ত আকাশের দিকে l
এক পশলা বৃষ্টির ঘ্রান নিবে বলে দারুণ রুক্ষতা মাটির বুকে l
ভেসে যাওয়ার আকাঙ্খায় খড়কুটোরা গুটিয়েছে পাততারি —
ব্যাঙাচিরা তাদের জীবন চক্র সামলাতে হিমসিম ,
হরি – হরি !
ঘরের সামনে নিকোনো উঠোন শস্য শুকোয় তপ্ত বুকে l
সব আশা ভঙ্গ দিয়ে শ্রাবণহারা স্কুলছুটি গুলো
বেজার মুখে ,
শ্রাবণে কত মাছ ধরে জেলে ,লাঙ্গলও হাসে চাষার সুখে l
ময়ূরের নাচ দেখেই বর্ষামঙ্গল গায় মাঝি ভাই ,
ঝড়ো ঝড়ো , ছলো ছলো শ্রাবণ হারা হয়েছি সবাই l
পানকৌড়ি বসে ফুঁপিয়ে কাঁদে মাছরাঙা আর জলপিপির
দুঃখে l

কামগন্ধী কিংখাব

ভোরবেলা প্রচন্ড জোড়ে বৃষ্টির শব্দ শুনতে শুনতে ঘুমোবো ভেবে টেনে নিলাম পায়ের কাছের চাদর ;
হঠাৎ রিংটোন বেজে ওঠে ,
বুঝতে পারি ঠিক তোমারই অন্য কারো নয় l
তোমার কণ্ঠে আমার শরীরের সমস্ত
তন্ত্রী বেজে ওঠে l
পরতে পরতে আমার শরীর জুড়ে মুড়তে থাকে
কামগন্ধী কিংখাব l
আমি চোখ মেলতে পারিনা
আমি মগ্ন হই ,
তোমার স্বর ও বাণীতে l
তোমার সুর ধারায় স্নাত হয়
আমার অনাবাদি জমি l
আমি তোমার মাঝে সম্পৃক্ত হতে থাকি l
জানালার আরশি বেয়ে জল নামে বিন্দু বিন্দু
মেঘ ছুঁয়ে যায় আমায়
বৃষ্টি ছুঁয়ে যায় আমায় l
আমি নদী হই ,
বৃষ্টির তীব্রতার সাথে একাত্ম হই আপ্রাণ l
ভিজে যায় আমার গায়ের রেশমি কিংখাব l
Spread the love

You may also like...

error: Content is protected !!