• Uncategorized
  • 0

সাপ্তাহিক শিল্পকলায় শিল্পের জন্য শিল্প- লিখেছেন আলবার্ট অশোক (পর্ব – ২৭)

৮ই মার্চ ২০১২ “L’art pour l’art” (অনুবাদ করলে ” শিল্পের জন্য শিল্প ” )এই ভাবনাটা থিওফিল গৌটিইয়েরের। Pierre Jules Théophile Gautier  (1811–1872) পিয়ের জুলস থোওফিল গৌটিইয়ের ছিলেন একজন ফরাসি কবি, নাট্যকার, উপন্যাসিক, সাংবাদিক এবং শিল্প ও সাহিত্য সমালোচক।
তিনি তাঁর  বই, ম্যাডেমাইসেল ডি মউপিন (Mademoiselle de Maupin) এর ভূমিকাতে বাক্যাংশ শ্লোগান হিসাবে ব্যবহার করেন, বইটি ১৮৩৫ সালে প্রকাশ হয়।  গৌটিয়ার অবশ্য এই শব্দগুলি লেখার ক্ষেত্রে প্রথম নন: এগুলি ভিক্টর কাজিনবেনজামিন কনস্ট্যান্ট এবং এডগার অ্যালান পোয়ের (Victor Cousin, Benjamin Constant, and Edgar Allan Poe)রচনায় প্রকাশিত হয়। উদাহরণস্বরূপ, পো তাঁর প্রবন্ধ দ্য কবিতা নীতি“”The Poetic Principle” (1850):তে যুক্তি দেখিয়েছেন:
নিজের মন বা আত্মাকে উল্লসিত করে, আনন্দ দেয়,  এমন কয়েকটি কবিতার উদাহরণ নিয়ে আলোচনা করার পরে, কবিতা এবং কবিতার লক্ষ্য সম্পর্কে সবচেয়ে বিপজ্জনক সাংস্কৃতিক ভুল ধারণা তিনি যা বিবেচনা করেন তা তুলে ধরার চেষ্টা করেন, এমন একটি ভুলধারণা যা কবিতাপূর্ণ চেতনাকে গভীরভাবে বিশ্বাসঘাতকতা করে:
“এটা ধরে নেওয়া হয়েছে, সুস্পষ্টভাবে এবং স্পষ্টভাবে,প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে যে, সমস্ত কবিতার চূড়ান্ত বস্তু সত্য। বলা হয়, প্রতিটি কবিতা নৈতিকতাকে প্ররোচিত করবে বা শিক্ষা দেবে; এবং এই নৈতিকতার দ্বারা  কাব্যিক যোগ্যতা বিচার হবে। আমরা আমেরিকানরা বিশেষত এই সুন্দর ধারণাটা পৃষ্ঠপোষকতা করেছি; এবং আমরা বোস্টনীয়রা খুব বিশেষত ভাবনাটাকে পুরোপুরি বিকাশ করেছি। আমরা এটা আমাদের মাথায় নিয়েছি যে কেবল কবিতার প্রয়োজনে একটি কবিতা লিখতে এবং আমাদের নকশা তেমন  বানাতে  মূলত সত্যিকারের কাব্যিক মর্যাদা ও শক্তি কামনা করতে নিজেদের তেমনভাবে নিয়ে যেতে হবে। তবে সাধারণ ঘটনাটি হ’ল আমরা কেবল নিজেরাই দেখে নেব,যদি আমাদের নিজের আত্মার দিকে তাকাই আমাদের সাথে সাথে এটা আবিষ্কার করা উচিত -এই আকাশের সূর্যের তলায় সেখানে এই কবিতাটির চেয়ে আর কোন কিছু  বা আরও মর্যাদাপূর্ণভাবে ও উচ্চমানের মহৎ থাকতে পারে না, এই কবিতাটি, এই কবিতাটি যা একটি কবিতা এবং আরও কিছু নয়, এই কবিতাটি কেবল কবিতার জন্যই রচিত। “

 

Edgar Allan Poe

অর্থাৎ এডগার এলান পো র বিশ্বাস ছিল, কবিতাতে, শিল্পতে, নৈতিক কথা বা কবি যা সত্য উপলব্ধি করেন তা থাকবে, যাতে মানুষ কিছু শিখতে পারেন। কিন্তু কবিতা বা শিল্পের এই বাঁধা ধরা গন্ডী থাকা কি উচিত? পরবর্তী সময়ের শিল্পী কবিরা স্থির করেছেন।
এডগার অ্যালান পো বেশীদিন বাঁচেননি (Edgar Allan Poe January 19, 1809 – October 7, 1849)মাত্র ৪০ বছর বেঁচে ছিলেন তার মধ্যেই তিনি যুগান্তকারী স্বাক্ষর রেখেযান। তার মতে কবিতা ছোট ছোট স্বল্প পরিসরের প্রকৃতি হওয়া উচিত। তিনি পোয়েটিক প্রিঞ্চিপ্যাল বলে একটি রচনা বা এ্যসে লিখেছিলেন। তাতে লিখেছিলেন কবিতা কবিতার জন্য লেখা হোক। কারণ শিল্পের উদ্দেশ্য হল নান্দনিক সৌন্দর্য সৃষ্টি করা। তিনি Didacticism এর বিরুদ্ধে মত পোষণ করেন।ডাইড্যাক্টিজম এর মানে হল চিত্ত বিনোদনের সাথে সাথে নীতিগত কিছু শিক্ষা দাও।
এরপর কম্যুনিষ্টরা এক নতুন উকালতি আনে।
ঊনবিংশ শতাব্দীর মাঝামাঝি Socialist realism শিল্প সাহিত্যে ঢুকে রাশিয়ার proletariat আন্দোলনকে পুঁজি করে। এই আন্দোলন বাস্তবানুগ ছবি ও সমাজকে কেন্দ্র করে সামাজিক সমস্যাকে তুলে একটা ধারা নিয়ে এল। রাশিয়াতে এই ধারাটা আগেও ছিল ১৯২০ থেকে ১৯৬০ সমাজতান্ত্রিক বাস্তবতা এখনো বর্তমান। Art for Man’s Sake: Alexander Solzhenitsyn  ভাবনার আলেকজান্ডার সলঝিনিৎসিন  স্তালিনকে নিয়ে কটু কথা বন্ধুকে বলার দায়ে তার জীবনে কম্যুনিষ্টরা পীড়ন আরম্ভ করেছিল। তার বই নিষিদ্ধ করে দিয়েছিল। নোবেল কমিটি আলেকজান্ডার কে পুরষ্কৃত করতে গিয়ে বলেছিল একটা লেখা একজন লেখকের জীবৎদ্দশার নথি, লেখক হলেন সামাজিক ও রাজনৈতিকতার উৎপাদন। যদি এই ভাবনাটাকে আমরা গ্রহন করি, তাহলে শিল্প শিল্পের জন্য বা শিল্প সমাজ বা মানুষের জন্য এসব সহ একজন শিল্পীর বা সাহিত্যিকের জীবৎদ্দশার নথি, এই হিসাবেও দেখতে পারি। অবশ্যই আগের দুটি ভাবনার উপরও কতটুকু নান্দনিকতা প্রকাশ করল তার উপর নজর দেওয়া দরকার। মনে রাখা দরকার আলেকজান্ডার কে নোবেল দেওয়া হয়েছিল১৯৭০ সালে তার লেখা “for the ethical force with which he has pursued the indispensable traditions of Russian literature” এর জন্য। নিজের ভূমির সাংস্কৃতিক বৈশিষ্টতাকে চিহ্নিত করণে শিল্প শিল্পিত হয়ে উঠে।
এই ধারণাকে আমি বিশ্বাস করি। আমার ছাত্রছাত্রীদের জন্য এইভাবনাটাই মূল নীতি।
Minimalism মিনিমালিজম্মানে কি?

 

Kazimir Malevich, 1915, Black Suprematic Square, oil on linen canvas

minimal মানে Smallest in amount or degree, তাহলে মিনিমালিজম্‌ মানে কি ক্ষুদ্রায়ন করা? ছোট করে বানানো?
আমরা যারা পড়াশুনা করি তারা অনেকেই তার্কিক পন্ডিত। তাত্ত্বিকতার নানা দিশা খুলে প্রয়োজনীয় অপ্রয়োজনীয় বাগাড়ম্বরে জিততে চাই। এই জেতার সাথে সমাজের দায়বদ্ধতা একদম কেউ রাখেনা, বা অধিকাংশ সময়েই নিজের অহংকার বাকী সব জায়গা অন্ধকার করে রাখে। আবার যারা পড়াশুনাকে উপেক্ষা করে এটা বুঝেন যে ‘আমাকে খেটে খেতে হবে, সুতরাং, পড়াশুনা করে সময় নষ্ট যতক্ষণ করব ততক্ষন একটা কাজ দুহাতে করলে আর্থিক সুবিধা সুযোগ বাড়বে। কিন্তু দেখা গেছে- যিনি পণ্ডিত হয়েছেন তিনি একটা মাইনে ধরা চাকরি পেয়ে নিজের বাড়ি গাড়ি করে অন্যের উপর তার কেতাবি বিদ্যা আওড়ে সম্মান অর্জন করছেন। কিন্তু সামাজিক আন্দোলন করে সমাজকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার কোন অবদান রাখেননা। আর যারা গতরে খেটে বোধবুদ্ধিহীন শিল্পসামগ্রী বানিয়ে যান, আশা বাজারে  ক্রেতাদের দিকে তাকিয়ে মন যোগানো কাজের অজস্র উৎপাদন করে যান, তারা কিন্তু উৎপাদনের বড় একটা  অংশ বিক্রী করতে পারেননা।ফলতঃ উৎপাদিত শিল্প সামগ্রী শিল্পীর বাড়িতেই নষ্ট হয়। অথচ কাঁচামাল কিনে আনতে হয় তাতে অনেক পয়সা ব্যয় হয়। ও হতেই থাকে।
আরেকটা জিনিস লক্ষ্য করেছি, কিছু মানুষ আছেন অতি চালাক তারা রাতারাতি বা খুব কম সময়ে – যে কাজ করতে ৩০ বছর চর্চা লাগে সেই কাজ ৩ বছরে সেরে ফেলতে চান। এটা একেবারেই অসম্ভব। ৩০ বছর কে ৩ বছরে আনতে অনেক কিছু জরুরী বা অপরিহার্য চর্চা বাদ দিয়ে দিতে হয়। তাতে কেমন লাগে? কাজটা কেমন হবে?
আবার প্রসঙ্গে আসি। মিনিমালিজম্‌ কি? মিনিমালিজম্‌  হল ১৯৬০ এ আমেরিকার নিউইয়র্কে শিল্প সাহিত্য ও সঙ্গীতের এক আন্দোলন। এটা অধিক প্রভাবিত করেছিল দৃশ্য জগতের চিত্রকর ও ভাস্করদের। উপর থেকে এর চরিত্র বা বৈশিষ্ট দেখা গেছে রুপ সরলীকরণ ও আক্ষরিক অর্থে বস্তুকে বোঝানো। একে আপনি বাংলায় ‘অ আ ক খ শিল্প ও’ বলতে পারেন। কারণ ইংরেজিতে Minimal art, also called ABC art। সমস্ত কিছুকেই ছোট করে আনা বা ক্ষুদ্র করে আনা। রাশিয়ার চিত্রকর কাশিমির মালেভিচ( Kazimir Malevich) একটা সাদা জমিতে কালো বর্গক্ষেত্র এঁকেছিলেন। সেটা ছিল ১৯১৩ সাল এবং সেটাকেই প্রথম মিনিমালিজম আন্দোলনের নমূনা হিসাবে ধরা হয়।

Donald Judd, Carl Andre, Dan Flavin, Tony Smith, Anthony Caro, Sol LeWitt, John McCracken, Craig Kaufman, Robert Duran, and Robert Morris ,Jack Youngerman, Ellsworth Kelly, Frank Stella, Kenneth Noland, এরকম অনেক শিল্পীর নাম আছে এই আন্দোলনের।

১৯৪০ এর দিকে Abstract expressionism বিমূর্ত অভিব্যক্তিবাদ যার আরেকনাম Action painting বারং ছিটকানো কলা আমেরিকায় এক বিশেষ ভাবনার জন্ম দিয়েছিল ও অনেক শিল্পী প্রভাবিত হয়েছিলেন।  পশ্চিমের শিল্প এই নিউইয়র্ক শহরেই এরও সূত্রপাত। আগে পশ্চিম বলতে বোঝাত ফরাসী প্যারী শহর।

শিল্প সমালোচক Robert Coates রবার্ট কোটস  প্রথম ১৯৪৬ সালে Abstract expressionism বিমূর্ত অভিব্যক্তিবাদএই পরিভাষা ব্যবহার করেন। এই ধরণের কাজ ১৯১৯ সালে জার্মান পত্রিকায় জার্মান অভিব্যক্তিবাদ বলে অভিহিত করেন। আমেরিকায় Wassily Kandinsky ওয়াশিলি কান্ডিন্সকির কাজ নিয়ে ১৯২৯ সালে এই পরিভাষা প্রথম ব্যবহার হয়। Martha Graham, Isamu Noguchi, Jackson Pollock, Mark Rothko , Barnett Newman প্রমুখ সহ অনেকে এই আন্দোলন  Abstract expressionism বিমূর্ত অভিব্যক্তিবাদ তাদের কাজে সাক্ষ্য রেখেছিলেন।

Wassily Kandinsky

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ পরবর্তী কালীন মানুষ নিজেকে অধিক স্বাধীনভাবে প্রকাশ করার বাসনা থেকেই নানা শিল্প আন্দোলন। মিনিমালিজম ভাবনার  শিল্পীরা বিমূর্ত অভিব্যক্তিবাদের মধ্যে জ্যামিতিক বিমূর্ততা বস্তুকে তার অনেক বাহুল্যতা বাদ দিয়ে চেনাতে সাহায্য করেছিল, মিনিমালিজম একেবারেই সংক্ষিপ্তকরণ। বস্তুর অন্তঃকরণের চরিত্রটুকে রেখে আর সব কিছু বাদ দিয়ে।
বিভিন্ন মহাদেশের ভিন্ন রকমের স্বাদ, রুচি ও দর্শন। কেউ (এশিয়া) অবিকল প্রাকৃতিক রুপ পছন্দ করে, কেউ (ইউরোপ) কিছু বুদ্ধিদীপ্ত বিষয় – জ্যামিতিক রূপ জাতীয়  কেউ (আমেরিকায়)  আবার একেবারেই বিমূর্ততা পছন্দ করে। আসল শর্ত হল মানুষকে মৌলিক কিছু দেখানো ও আনন্দ দেওয়া।

Wassily Kandinsky

ছবি আঁকার আগে ভাবনাই হল প্রথম কাজ। ভাবনাকে রূপ দেওয়া অপরিহার্য,। এই দুটি কাজ যারা নিজের মেধা ঘেঁটে করতে পারেন তারাই সামাজিক অবদান রাখেন। সৃষ্টি ভূমিকা পায়।
Spread the love

You may also like...

error: Content is protected !!