সাপ্তাহিক ধারাবাহিক কথা সাগরে মৌসুমী নন্দী (যাপন চিত্র – ৪২)

0
62
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

পালতোলা


সেগুন পাতায় মেঘ জমার মতন করে মাঝে মাঝে মন ও ভিজে ওঠে চোখের জলে ৷ আকাশ ,নদী , গোলাপ সবাই যেনো মনভারী করে আড়ি করে দেয় সেই সময় ৷ বিকারগ্রস্ত নস্ট্যালজিয়ায় খুঁজতে থাকি উষ্ণতা ৷ তারপরে একসময় ভুলে যাই কি খুঁজতে থাকি ৷ তাকিয়ে থাকি দূরে চলে যাওয়া গাড়িটার দিকে ৷ শূন্য থেকে আরেকটা শূন্যে ৷ ঠিকমত স্পেস বা ধারাবাহিতা অসংলগ্ন হলেও একধরনের সম্পর্ক তৈরী করে নেয় নিজেদের মধ্যে ৷ আলোর ছায়ার মায়ার মত ৷বিন্দু বিন্দু করে লালিত হয় শব্দহীন এক আশ্চর্য মৌনতায় ৷ একেবারে অন্তরীণে ৷ চলে তার জন্মপ্রক্রিয়া ৷ না বলা কথার মাইল মাইল পথ শেষে পৌঁছে যায় এক সত্তা থেকে আরো এক গভীর সত্তায় ৷ হাতের বন্দী মুঠো খুলে যায় সহজেই অগোছালভাবে ৷কুয়াশার ভেজা পর্দার খাঁজে ছন্দবিহীন নিবিড় সাজে তবুও চলে অবিরত যাপন উড়ন্ত পাখিদের মতন ৷ক্লান্ত নদী জীবন এদিক ওদিক খোঁজে একটা ওয়েসিস ৷ কথা কোনো অস্ত্র নয় তবু কথাতে কত মানুষ খুন হয় প্রতিনিয়ত ৷ তবে কথার ও ক্ষয় হয় ৷ অনেক সময় যা বলতে চায় মানুষ তা বলা হয়ে ওঠে না সম্পর্ক নষ্ট হবার ভয়ে , গুমরে গুমরে ওঠে গলার কাছে ৷ শেষে মানুষ ভুলে যায় তার কি বলার ছিলো ৷ তখন মনখারাপের ঝাঁপি খালি হতে থাকে ৷ আবার চৈত্রের কোনো দুপুরে বিষাদ ছোঁয়া একটি ডালে বসে একটি আনমনা পাখি ৷ ধুলোর মত ফুঁ দিয়ে উড়িয়ে দেয় মনখারাপের ঝাঁপি ৷সেলফে গুছিয়ে রাখা বইএর মত ৷ নষ্টভাসাকে ভাসিয়ে দিত পারলে ক্রমশঃ ছুঁতে পারা যায় প্রান্তিক মাটি ৷ তখনই সেই সব ক্ষতের সরণী বেয়ে নেমে আসবে কুয়াশার নিবিড় সোহাগ যেখানে শব্দরা শেষ শয়্যা পেতে শুয়ে থাকবে পোষাকহীন ভাবে ৷ মেঘেরা ভেসে বেড়াবে পালতোলা নৌকার মত ৷


Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •