সাহিত্য ভাষান্তরে বাসুদেব দাস

    0
    11
    Spread the love
    •  
    •  
    •  
    •  
    •  
    •  
    •  
    •  
    •  

    না খাওয়া

    চেনীরাম গগৈ
    মূল অসমিয়া থেকে বাংলা অনুবাদ

    আমদের ঘরে মা আজ নতুন চালের ভাত রেঁধেছে
    পোনা মাছে পাতে দিয়ে কচু শাকের টক
    মায়ের দুঃখ ছেলেমেয়েরা অনেক দিন ধরে ক্ষুধার্ত
    মুখের সামনে দেবার জন্য ঘরে ছিল না খাবার
    আজ তিনি সুখী মহিলা,উনুনের নিচে আগুন ধরিয়ে
    আজ কার্তিক মাসের ছোট দিনে তাঁর ঘরে অতিথি
    মায়ের আজ খুব ইচ্ছা ছিল একটা হাঁস মারবে
    মিহি করে থেতলাবে ভীমকলের একটা চারা
    একভাগ গোটা ভাজা হবে,অন্যভাগ ঝাল হবে
    ভাপে দেওয়া ভাত দেবে শালপাতা পেতে
    কাঁসার বাটিতে পানীয়
    মাটির পাটিতে আসন।

    আমরা জানি সে ছিল দাদুদের দিনের কথা
    অগ্রহায়নের দিন যায়,কৃষক খায় না
    বিলের মাছ,পাহাড়ের খড়ি,চরের শাকসবজি,কলাপাতার চালা
    সূর্য অস্ত যায়,গৃহস্থ উঠোনে আগুন ধরায়
    বুড়ি মা আলু পোড়ায় আমরা তালু পুড়িয়ে খাই
    ঠাণ্ডা পড়ে,রাত বাড়ে,ভোজভাত খাওয়া হয়
    হাতে হাতে জোঁর নিয়ে বাড়িমুখি মানুষ।

    আমরা সুখী আমাদের আজ আকালের না খাওয়া
    রোদ নেই,কাল মা খুঁড়েছিল কাঁচা ধান
    চালের বীজ নেই,পুরোটাই পিঠা
    যা সিদ্ধ মা আজ তা দেবে মৃতকে
    তারপর সেগুলি আমাদের পেটে হজম হবে।
    আমাদের ঘরে আমরাই আজ আসল ভকত।
    টীকা-
    জোঁর-অন্য জায়গায় নিয়ে যাবার জন্য জ্বলন্ত খড়ের মুঠি

    Spread the love
    •  
    •  
    •  
    •  
    •  
    •  
    •  
    •  
    •