এক মাসের গপ্পে বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায় (অন্তিম পর্ব)

0
26
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এক অভিনেতার ডায়েরি এবং – ৪

তিন দিন পর যখন গ্যাংটকে পৌঁছোতে পারলাম শেষ পর্যন্ত তখন আধমরা অবস্থা আমার | তবে শুধু প্রাণটুকু সঙ্গে থাকার আনন্দ যখন মানুষ অনুভব করতে পারে তখন অন্য সব দুঃখ তুচ্ছ হয়ে যায় তার কাছে | আমারও তাই হয়েছিল | হাজারও কান্নার ভিতর একটা বাচ্চার হাসি আমায় মনে করিয়ে দিচ্ছিল , সব শেষ হয়ে যায়নি | প্রাণ আছে, এখনও প্রাণ আছে |
আমার কোম্পানির মালিক অনেক চেষ্টা করেছিলেন এই তিন দিন আমার খবর নেওয়ার | স্বাভাবিকভাবেই পারেননি | কারণ কোথাও কোনও নেটওয়ার্ক নেই | আমার ফোনটা পেয়ে উনি এমন উচ্ছ্বসিত হয়ে উঠলেন যে আমার সত্যিই মনে হল, একটা পরিবারের সদস্য আমি |
– তুমি ঠিক আছ ? তুমি সুস্থ আছ তো ? কম সে কম পাঁচবার কথাটা জিজ্ঞেস করলেন গুহসাহেব |
– হ্যাঁ স্যার, ঠিক আছি। আপনি চিন্তা করবেন না।
– তুমি কলকাতায় ফিরে এসো, অ্যাজ আর্লি অ্যাজ পসিবল | আর টাকার চিন্তা কোরো না। যেভাবে হোক ফেরো, বাকিটা আমার রেসপনসিবিলিটি।
– ফিরছি স্যার, ফিরেই রিপোর্ট করব আপনাকে |
– ও.কে | সাবধানে এসো |
– থ্যাঙ্ক য়ু স্যার | বাই |
– বাই | অ্যাই শোনো শোনো, ফোন ছেড়ো না | সিকিমের ভুমিকম্পর পাশাপাশি কলকাতাতেও ক’দিন ধরে একটা খবর নিয়ে ভূমিকম্প চলছে | ওই যে তোমাদের সুপারস্টার অভিনেতা, প্রতাপ সাক্সেনা, সে নাকি তার কোন বান্ধবীকে নিয়ে কাউকে কিছু না জানিয়ে সিকিমে ছুটি কাটাতে গিয়েছিল | গত ক’দিন ধরে ওদের কোনও খবর পাওয়া যাচ্ছে না | মিডিয়া বলছে ওদের শেষ নাকি লাচুং-এর ধারেপাশে দেখা গিয়েছিল | জানি না কীভাবে বলছে, হয়ত মোবাইলের কল হিস্ট্রি সার্চ-টার্চ করে | আমি ভাবছিলাম, তুমি তো ওই চত্বরেই ছিলে | ওই স্টার এবং তার বান্ধবীর কোনও হদিশ-টদিশ দিতে পারো ?
গুহসাহেব একনিঃশ্বাসে কথাগুলো বলে যখন দম নিচ্ছেন ততক্ষণে আমি স্টুডিয়োর কোন ফ্লোরে পৌঁছে গেছি মনে মনে | আমার সামনে লাইটস অন হয়ে গেছে, ক্যামেরা রোল করছে, ডিরেক্টর বলে উঠলেন – অ্যাকশন …
গুহসাহেব আমাকে চুপ করে থাকতে দেখে ফোনের ওপার থেকে বললেন, ভাবলাম, বাই চান্স তোমার সঙ্গে মোলাকাত হয়েছে কি না …
আমি আমার সবটুকু অভিনয়ক্ষমতা স্পিকারের সামনে নিয়ে এসে বললাম, প্রতাপ সাক্সেনা আর তার বান্ধবীর কোনও খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না, ভুমিকম্পের পর থেকে ? আপনি কী বলছেন স্যার ? আমি তো ভাবতেও পারছি না …

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •