কবিতায় হরেকৃষ্ণ দে 

    0
    5
    Spread the love

    আন্দাজ 

    পাঁচশো গ্রাম ওজনের জিনিস দূর থেকে
    চোখের পাল্লাতে চাপিয়ে বার বার বলে দেওয়া
    দক্ষতা আমার নেই
    মুখের ভাঁজ দেখে বলে দেওয়া সহজ
    আমি সরল না কুটিল..

    ২) গলগ্রহ  

    চোখের গ্রাসনালী বেয়ে রুক্ষ প্রান্তর বানানো
    শিল্পির কাছে আছড়ে পড়ে আতঙ্কের ধূলো
    খিটখিটে পাঁজরে আবর্জনার নালা পরিষ্কার
    করা এক বৃথা কীর্তন
    তবুও বিষম খাওয়া রাত্রি নক্ষত্র ঝরায়
    দ্বন্দ্বের পৃথিবী বানানো টয় হৃদ্যতার
    মলাটে

    ৩) অভিসম্পাত 

    মুখোমুখি দরজার প্রাচীর কেটে বানানো জানালায়
    কাটাকুটির ছাঁচপাঁচ
    অবসরের হুতাশ আলোয় ছিদ্র রাখা টেরা মন
    অবশ ডানা ঝাঁপটায়
    বেদনার শব্দহীন গীটারে কাটা তার
    প্যাঁচ খায় বার বার

    ৪) শব্দবেলুন 

    ক্ষণিক মন ভালো বিকেল
    রাঙা পশ্চিম থেকে লাল প্রচ্ছদ খসে পড়ে
    প্রেমের নিগূঢ় সময়ের আঁঠায়
    অক্ষম কলের চোখ ভেজা বাতাসে
    বুকের ভেতর বার বার ফুলে ওঠে
    আন্তরিক কষের ফুঁৎ নল
    আকাঙ্ক্ষার বাতাস ভরে সাজাতে থাকে
    মনের দরজায় আকাশে ভাসমান শব্দবেলুন

    ৫) এগরোল 

    গোপন ইস্তেহারে টানা চোখের সুরমা
    নিত্য সুরের সকাল ছড়ানো ঊঠোন
    গাণিতিক সমস্যার নোটবুকে কষতে থাকা
    অ্যানাটমি
    মাউথ অর্গ্যানের ঠোঁটে আকর্ষণী ছায়া
    লতিয়ে লতিয়ে আঁকড়ে ধরে
    যেমন এগরোল হাতে মুখোমুখি বসে
    হৃদয়ে রোলিং হচ্ছিলাম চোখের ভেতর পরস্পরের
    প্রতিবিম্ব দেখতে দেখতে৷

    Spread the love