উৎসব সংখ্যায় কবিতা – সোমনাথ বন্দ্যোপাধ্যায়

    0
    8
    Spread the love

    সেই নজরুলে

    আর কিছু বাকি নেই লেখার মতো
    যেদিকেই হাত রাখার চেষ্টা করি,
    দেখি আগেই সোনা ফলে আছে।
    একটা ফুলের চারা এনে লাগিয়েছিলাম,
    ফুল ফোঁটার পরও সেই সৌন্দর্য্যের
    কোনোরকম কবিতা-গান লিখতে পারিনি।
    ভাবলাম প্রেয়সীর খোঁপায় ফুলটা গেঁথে দিয়ে
    অজানা প্রেমিক সুরে গেয়ে উঠবো,
    নিজের একটা শ্রেষ্ঠ প্রেমের গান!
    এখানেও কিন্তু থেমে যেতে হলো আমায়।
    এরপর এদিক সেদিক অনেক ছুটেছি,
    যার যেটুকুকে ভালোবেসে নিয়েছি,
    আপন করে লিখতে চেয়েছি দু-কলি!
    সত্যি বলছি,সেই বারেবারে নিরাস করেছে।
    দেওয়ালে পিঠ-ঠেকা অবস্থায় প্রতিবাদে নামলাম,
    হৃদয় স্লোগান চাইলো,
    কন্ঠ এবার নিজেই ডাক দিলো নজরুলকে!
    হ্যাঁ,নজরুলের সুরেই অগ্নিবীনার ঝংকার উঠলো চারিদিকে।
    কিভাবে জানিনা,
    তবে আমার সমস্ত আকাশ আজও তার।
    সবই যেন সে সাজিয়ে রেখেছে ,
    তাই আর লিখতে পারিনা কিছুই,গাইতে পারিনা কিছই-
    কারণ আমার হয়ে সব নজরুল লিখে গেছে!
    আমাদের প্রেমে সে গান লিখেছে,বেদনায় সে কেঁদেছে বারেবার।
    তাই আর কিছুই লিখতে পারিনা আমি,
    তার দায় শুধু নজরুলের!
    তাকেই জীবনের ধ্রুবতারা করে এগিয়ে চলেছি,
    আমার হৃদয়কে ভরিয়ে তুলেছি সেই নজরুলে।

    Spread the love