কবিতায় প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়

    0
    11
    Spread the love

    উভচরের চুক্তিপত্র

    ফাঁকফোকর দিয়ে ঢুকবে না কিছুতেই কেঁদো ও কেলেকিষ্টি চওড়া রাস্তা
    যদিও, হলুদ পোস্টকার্ডে ঠেসেঠুসে ঢোকানো হতো কালামাণিক যথেচ্ছ অক্ষর,
    কিংবা পাথুরে স্ট্যাচুর চোখেমুখে টাটিয়ে ওঠে হাজার নটিক্যাল মাইল নোনাজল
    এখনো, আয়নার শরীরেও কি অমনই উঁকি দেয়না তার প্রতিপক্ষের ছবি?
    মনঃস্থির করেই ফেলেছে আর যুক্তিও সাজিয়েছে
    হাজার হাল্লা হোক,হাল্লাক—পোয়াতে হোক হ্যাপা ঢের গুচ্ছের
    তবুও, বাইলেন থেকে মেঠোপথে নামবে না, এগোবে হাইওয়ে বেয়ে
    উড়বে-লুকোবে, তেমন মনপসন্দ হলে হারিয়েও যাবে…
    আদতে, সারাক্ষণই মনের ভিতরে পোষ্য থাকবে থাক দুঃস্বপ্নের ড্যাম্পনেস,
    তুষাগ্নির গুমসুম ধুনি; তা জ্বলে যদি জ্বলুক, উথলে উঠুক নাহয় চোখেরই ঝর্ণাজলে
    গুচ্ছের ফ্রিজশটে থাকুক না গুটিকয় তোমার শান্ত প্রতিচ্ছবি; না,না! গল্পকথা নয়
    প্রকৃত-প্রস্তাবে, ডানা মেলতেই ভুলে গেছিল শুনেছি সম্মোহিত পোকার পাখনা !
    (অবচেতনের দৌলতে) টিকটিকিও বুঝে ফেলেছিল দেওয়ালের স্যাঁতস্যাঁতে হাবভাব
    এড়িয়ে যেত তাই মেঝে লাগোয়া ভিজে দেওয়াল—দ্বি-জাতি তত্বের সুবাদেই নাকি
    সর্বত্র – সাপুড়েরাও জেনে ফেলেছে চেরা জিভে ঠাসা থাকে মাত্র কয় আউন্স বিষ

    Spread the love