অলফণি – তপন মণ্ডল

    0
    10
    Spread the love

    বিদ্যাসাগর২০০/বিশেষ সংখ্যা

    লাখ টাকার প্রশ্নে দু’শো বছর 

    বিদ্যাসাগর । দু’শো বছর । ভাবা যায় । চারিদিকে আনুষ্ঠানিক রমরমতা । হবে নাই বা কেন আমাদের অক্ষর গুরু বলে কথা । হওয়াই উচিত । কিন্তু ……. কিন্তু …… । কেউ বলবেন আমার বড়ো নাক উঁচু । কেউ কেউ আবার ঘন্টা খানেক …… । তবে আমার আবার নাক উঁচু হতে খুব ভালো লাগে, বেশ আর্য আর্য  ভাব । যাইহোক, আচ্ছা বিদ্যাসাগরের প্রতি এতো ভক্তি আগে কোথায় ছিল ? শুধুই কী ৫০, ১০০, ১৫০  …..। কাগজে পড়লাম কোথায় যেন বিদ্যাসাগর মূর্তিতে এতো ময়লা পড়েছে যে সামান্য জল দিয়ে ওঠেনি শ্যাম্পু দিয়ে কসরত করতে হচ্ছে । অবশ্যই দু’শো বছরের সুফল । কিন্তু প্রশ্নটা দুশো টাকার নয় প্রশ্নটা লাখ টাকার ।
    যদি রাজনীতি করতাম তাহলে অন্য দলের ওপর দোষ চাপিয়ে দায় সারতাম । আচ্ছা সব দায় কী রাজনৈতিক দল বা সরকারের  ? বিদ্যাসাগরের প্রতি কী আমাদের কোন দায়বদ্ধতা নেই  ? নাকি আমরা আম জনতা বলে দু’শো বছরের আনুষ্ঠানিকতা ছাড়া নীরব দর্শক । সেদিনের দায়বদ্ধতা কী  শুধুই রাজনৈতিক রঙের ছিল, না কি যারা সেদিন মূর্তি ভাঙলো তারা অক্ষরজ্ঞান শূন্য ছিল  ? প্রশ্ন সেই লাখ টাকার ।  যা আজ ইতিহাস ।
    আজ বড্ড জানতে ইচ্ছে করে কার বাড়িতে সেই বর্ণপরিচয় আছে যার দ্বারা  প্রথম আলো দেখেছিলাম । আছে কী, বাবা মায়ের ছবির পাশে টাঙানো । বর্তমান প্রজন্ম কজন মনে রেখেছে বিদ্যাসাগরের আদর্শ । নারীদের প্রতিটি ঘরে কী ইষ্ট দেবতার সাথে বিদ্যাসাগরের মূর্তি ঝুলছে । আসলে আমরা Alfabet এর যুগে চলে এসেছি । অ – অজগর আ – আম, নারীশিক্ষার আন্দোলন, বিধবা বিবাহ এসব আজ আয়নায় ধুলো পড়ে যাওয়া একটা কাঁচ মাত্র । দু’শো বছরের এই নির্দিষ্ট দিনে শুধু একটু পরিষ্কার করে নেওয়া ।
    সেদিন ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলের ছেলেটি বাসের জানালা দিয়ে বিদ্যাসাগরের স্ট্যাচু দেখে মাকে যে প্রশ্ন করলো  ( এটা কার মূর্তি ) , সে দোষ কী তার ?  আমরা ইংরাজি শিখতেই পারি এটা কোন দোষের নয়, কিন্তু নিজস্ব সংস্কৃতি কৃষ্টি ভুলে নয় ।
    আজ স্কুলে কলেজে যে আনুষ্ঠানিকতার বছর চলবে তাতে কোথাও শিখতে আসা নতুন কুঁড়িদের বর্ণপরিচয় বিলি হবে কী না জানি না । তবে গান হবে নাচ হবে, সুন্দর সেলফি হবে । কিংবা বিদ্যাসাগরের মূর্তিকে জড়িয়ে ধরে তোলা সেলফি স্যোসাল মিডিয়ায় পোস্ট হবে, ভাইরাল হবে । আর বিদ্যাসাগর আবার আড়াইশো বছর নীরবে নিভৃতে পিছিয়ে যাবে । ফিরে আসবে আড়াইশো বছরের উদযাপনে ।

    Spread the love