একটু সচেতনতা চাই

    0
    7
    Spread the love

    প্রজ্ঞা

    পরিবেশে যে ভাবে দূষন এর মাত্রা বেড়ে চলেছে তাতে পরিবেশ বান্ধব নানারকম কাজ এবং মানুষের মধ্যে পরিবেশ সচেতনতা বৃদ্ধি করা অতি আবশ্যক ৷ এমনিতেই গ্লোবাল ওয়ার্মিং এর ফলে সুমেরু ও কুমেরুর বরফ গলতে শুরু করেছে৷ যার ফলে সমুদ্রের জলতল বৃদ্ধি পাচ্ছে , এবং নোনতা জলের পরিমাণ বৃদ্ধি পাচ্ছে৷ বিজ্ঞানীরা আশঙ্কা করছেন এভাবে জলতল বৃদ্ধি পেলে ভবিষ্যতে অনেক ছোট ছোট দ্বীপ জলের নীচে যাবে৷ সম্প্রতি দিল্লীতে দূষনের মাত্রা প্রচুর পরিমাণে বেড়ে যাওয়ায়, শীতকালে ধোয়াশার দরুন অনেক অনেক দিন কাজ, স্কুল ইত্যাদি বন্ধ রাখতে হয়েছিল৷ পরিবেশের তাপমাত্রা বেড়ে যাওয়ার ফলেই এরকম অপ্রীতিকর ঘটনার সৃষ্টি হচ্ছে৷ এছাড়াও এবছর বৃষ্টির পরিমাণ কম, এবং যেসব অঞ্চল বৃষ্টি কবলিত নয় সেসব অঞ্চলে বন্যা হয়েছে৷গ্লোবাল ওয়ার্মিং এবং পরিবেশ দূষনের ফলে পরিবেশের তাপমাত্রা প্রচুর পরিমাণে বেড়ে চলেছে৷ গরমে তাপমাত্রা প্রায় ৪৫-৫০ ডিগ্রী হয়ে যাচ্ছে। আশঙ্কা করা হচ্ছে ভবিষ্যতে এর পরিমাণ আরও বৃদ্ধি পাবে৷ এই দূষন থেকে বাঁচতে হলে একমাত্র উপায় গাছ লাগানো৷ প্রচুর পরিমাণে গাছ লাগালে তবেই এই দূষন থেকে মুক্তি পাওয়া যাবে৷ এছাড়াও সম্প্রতি পানীয় জলের খুব সমস্যা দেখা যাচ্ছে৷ চেন্নাই তে অস্বাভাবিক ভাবে পানীয় জলের সঙ্কট চলছে৷ তাই অবিলম্বেই সকলের উচিৎ পানীয় জলের সঞ্চয় করা৷ বিজ্ঞনীরা আশঙ্কা করছেন আর কয়েকবছর পরেই পৃথিবীর মানুষ পানীয় জল অর্থাৎ মিষ্টি জলের সঙ্কটে পড়বে৷ তাই পরিবেশকে দূষন মুক্ত করতে বেশী করে গাছ লাগানো, পানীয়জলের সঞ্চয় ইত্যাদি অবিলম্বেই করা উচিৎ৷ পরিবেশকে সুস্থ ও সুন্দর রাখার দায়িত্ব মানুষেরই৷৷


    Spread the love